জুনিয়র টাইগারদের শিরোপা খোয়ানোর নেপথ্যে আম্পায়ার!

  

পিএনএস ডেস্ক:বাংলাদেশ দলের সাথে আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্ত যেনো সমার্থক ব্যাপার। ২০০৩ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে মুলতান টেস্টে এক উইকেটের পরাজয়ের নেপথ্যে ছিলো আম্পায়ারদের পক্ষপাতিত্ব সিদ্ধান্ত। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে রোহিতের ক্যাচকে নো বলের ফাঁদে ফেলে বাঁচিয়ে দেয়া সাথে সুরেশ রায়নার নিশ্চিত এলবি না দেয়ার মতো ঘটনা আরো অনেক আছে।

সেই ঘটনাগুলোর পুনরাবৃত্তি হলো আজকে আবার। যুব এশিয়া কাপের ফাইনালে আম্পায়ারের শেষদিকের এক ভুল সিদ্ধান্তে আউট হয়ে যান তানজিম হাসান সাকিব। এর সাথেই শেষ হয়ে যায় জুনিয়র টাইগারদের জয়ের স্বপ্ন।

যুব এশিয়া কাপে দলীয় নৈপুণ্যে ফাইনালে উঠে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ দল। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে খেলতে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছিলো শক্তিশালি ভারতকে। ইনিংসের শুরুতে বোলিং করে ভারতকে মাত্র ১০৬ রানে বেঁধে ফেলতে সক্ষম হয় বাংলাদেশের যুবারা।

৫০ ওভার। গড়ে প্রতি ওভারে রান করতে হবে ২ এর একটু ওপরে। রান করতে হবে মাত্র ১০৭। তাহলেই যুবারা এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন। কাগজে-কলমে লক্ষ্যটা মোটেও কঠিন হওয়ার কথা না। কিন্তু সহজ এ লক্ষ্যটাই ভীষণ কঠিন করে জিততে জিততে হারল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। কলম্বোয় আজ অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ ফাইনালে ভারতের কাছে ৫ রানে হেরেছে বাংলাদেশের যুবারা। এ হারে অবদান রয়েছে আম্পায়ারেরও।

হাতে ২ উইকেট রেখে জয় থেকে ৬ রান দূরে থাকতে আম্পায়ারের ভুল এলবিডব্লিউর সিদ্ধান্তের খেসারত গুণে আউট হন তানজীম (৩৫ বলে ১২)। টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে আনকোলেকারের বলটি তার ব্যাটে লেগেছিল। এমনকি টিভিতেই বল ব্যাটে লাগার শব্দ শোনা গেছে। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে আউট ঘোষণা করেন আম্পায়ার। মাঝে দুই বল পর শেষ উইকেট তুলে নেন আনকোলেকার।

এর মধ্য দিয়ে প্রথমবার অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ ফাইনালে উঠেই বাংলাদেশের যুবাদের শিরোপা জয়ের স্বপ্নের অপমৃত্যু ঘটল। বাংলাদেশের ইনিংসে ম্যাচের ভাগ্য দুলেছে পেন্ডুলামের মতো। ভারত এখন এগিয়ে তো তখন বাংলাদেশ! কিন্তু ৭৮ রান তুলতে ৮ উইকেট হারানোর পর নয়ে নামা তানজীম হাসান ও দশে নামা রাকিবুল হাসানের দৃঢ়তায় জয় দেখতে শুরু করে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে অপমৃত্যুই ঘটল সে স্বপ্নের।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন