পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৯

  

পিএনএস ডেস্ক : চার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আজ রবিবার সকালে বরগুনা, মানিকগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও নওগাঁয় এ পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

বরগুনা:
জেলার পাথরঘাটা উপজেলায় ভেকুর নিচে চাপা পড়ে আব্দুল্লাহ (১৩) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। আজ রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের দক্ষিণ কুপধন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

কালমেঘা ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. মোস্তফা জানান, কালমেঘায় বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজে নিয়োজিত 'তমা কনস্ট্রাকশন' দীর্ঘদিন ধরে বেড়িবাঁধের কাজ করছে। ওই বাঁধের কাজে ভেকু মেশিন বেড়িবাঁধের উপর দিয়ে যাওয়ার পথে পাশেই বেড়িবাঁধের উপর বসতঘর থেকে ১৩ মাসের শিশুটি হামাগুড়ি দিয়ে বাঁধের উপর ওঠার সময় ভেকু মেশিনের নিচে চাপা পড়ে নিহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা মো. খবীর আহম্মেদ বলেন, 'মরদেহটি ঘটনাস্থল থেকে বরগুনা মর্গে পাঠানো হয়েছে। ভেকু মেশিনটি জব্দ করা হয়েছে কিন্তু চালক বা তমা কন্সট্রাকশনের কাউকে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৭ সালের ২২ ডিসেম্বর ভেকুর রশিতে পা হারান এক বালু শ্রমিক।

মানিকগঞ্জ:
জেলার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মূলজান এলাকায় যাত্রীবাহী একটি বাসের চাপায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত ওই যুবকের নাম মিন্টু মিয়া। আজ রবিবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, যাত্রীবাহী একটি পিকআপ ভ্যানকে পেছন দিক থেকে সাউথলাইন পরিবহনের একটি বাস ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই পিকআপের ওই যাত্রী মারা যান।

এ বিষয়ে গোলড়া হাইওয়ে থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, নিহতের মরদেহ ময়না তদন্ত প্রতিবেদনের জন্যে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

কিশোরগঞ্জ:
জেলার কুলিয়ারচর উপজেলায় ট্রাক্টর ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তিনজন। আজ রবিবার সকালে উপজেলার আগরপুর বাজারের কাছে ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন লালন মিয়া (৩৫), মো. শাহিন (২২) ও আবদুল করিম (২৮)। লালন মিয়ার বাড়ি বাজিতপুর উপজেলার কৈলাক ইউনিয়নের কৈলাক গ্রামে, মো. শাহিনের বাড়ি বলিয়ারদি ইউনিয়নের শিমুলতলা গ্রামে এবং আবদুল করিমের বাড়ি কৈলাক ইউনিয়নের রাহেলা গ্রামে। আহত তিনজনের মধ্যে দুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং একজনকে জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাজিতপুর থেকে অটোরিকশাটি ভৈরবে আসছিল। অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন পাঁচজন। সকাল পৌনে সাতটার দিকে অটোরিকশাটি আগরপুর বাজারের কাছে আসামাত্র বিপরীত দিক থেকে আসা বালুবোঝাই ট্রাক্টরের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে ট্রাক্টরটি সড়কে থেমে গেলেও অটোরিকশাটি ছিটকে দূরে পড়ে যায়। যাত্রীদের কয়েকজন সড়কে পড়ে যান। ঘটনাস্থলে শাহিন ও আবদুল করিম নিহত হন। পরে ঢাকায় নেওয়ার পথে অটোরিকশাচালক লালন মিয়া মারা যান।

কুলিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, ট্রাক্টরটি জব্দ করা গেছে। তবে চালক পালিয়ে গেছেন।

নওগাঁ:
জেলার পোরশা উপজেলায় সরাইগাছি-আড্ডা সড়কের কুশারপাড়া মোড়ে বাস-ইজিবাইক সংঘর্ষে নারীসহ চারজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন।

নিহত চারজনের মধ্যে তিনজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন উপজেলার ছাওড় ইউনিয়নের কোচনা গ্রামের আবদুস ছালাম (৫০), একই গ্রামের আশরাফুল ইসলাম (৩৮) ও উপজেলার বোড়াকুড়ি গ্রামের হীরা বেগম (৬০)। আহত ব্যক্তিদের পোরশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পোরশা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, সাপাহার থেকে নিয়ামতপুরের আড্ডা অভিমুখী যাত্রীবাহী একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ব্যাটারিচালিত একটি ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই ইজিবাইকের দুই যাত্রী মারা যান। পরে পোরশা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুজন মারা যান।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech