৫ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে ফিরে পেলেন মা - মফস্বল - Premier News Syndicate Limited (PNS)

৫ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে ফিরে পেলেন মা

  

পিএনএস : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের কল্যাণে নারায়ণগঞ্জের আড়াইজাহারে পাঁচ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া মানসিক প্রতিবন্ধি ছেলেকে ফিরে পেলেন তার মা। ছেলেকে ফিরি পেয়ে মা ফাতেমা বেগম (মহা রানী) খুশিতে আবেগে আপ্লুত। তিনি বলেন, ‘যাদের কারণে আমি আমার ছেলেকে ফিরে পেয়েছি আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। তাদের জন্য দোয়া করি আল্লাহ যেন তাদের ভাল করে। ’

ফাতেমা বেগম জানান, আজ থেকে পাঁচ বছর আগে পৌষ মাসের ৩ তারিখে দোকান থেকে পান আনতে গিয়ে আর ফিরে আসেনি জামান ভুইয়া। চার ভাই চার বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। তিনি মানসিকভাবে কিছুটা প্রতিবন্ধি হওয়ায় বিয়ে করেননি। হারিয়ে যাওয়ার পর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে কোথাও খুঁজে পাননি তারা।

এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে কান্না জড়িত কণ্ঠে ফাতেমা বেগম বলেন, ‘ছেলেকে ফিরে পেয়ে খুব খুশি। এই খুশি আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। যে সাংবাদিক আমার ছেলেকে ফিরিয়ে দিছে আল্লাহ তার মঙ্গল করুক, যাদের সহায়তায় আমি আমার ছেলেকে ফিরে পেয়েছি তাদের সবার জন্য দোয়া করি।’

জামানের বাড়ি ফেরার পেছনে কাজ করেছেন ফেসবুক ব্যবহারকারী আব্দুল বারী বাবলু। তিনি জানান, ‘একজন মানসিক প্রতিবন্ধীকে ৫ বছর পর তার মায়ের বুকে ফিরিয়ে দিতে পেরে আজ আমি বড়ই আনন্দ অনুভব করছি।’

ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা করে তিনি বলেন, ‘নোয়াখালীর সুবর্ণচরের চরবাট খাসের হাটে যারা আসা যাওয়া করেন কম-বেশী সবাই এই যুবককে (জামান ভুইয়া) চেনেন। তিনি খুব শান্ত স্বভাবের। যে যাই করতে বলে তিনি তাই করেন। সবাই তাকে জামাল বলেই জানতেন। গত ৫ রমজান বন্ধু যোবায়েরসহ ইফতার শেষ বাজারের একটি দোকানে বসে আড্ডা দিচ্ছিলাম। এসময় এই যুবক বিড়বিড় কি যেন বলছিল। আমি তাকে ডেকে এনে পাশে বসাই এবং তার সাথে কথা বলতে থাকি। ’

‘এক পর্যায়ে তিনি আমাকে বলেন, ‘‘কাশু চেয়ারম্যান আমাকে কাপড় দিচ্ছে না। ’’ তার এ কথার সূত্রধরে ফেসবুকে ‘কাশু চেয়ারম্যান’ লিখে সার্চ করে একটি দৈনিক পত্রিকার সংবাদ পেলাম। যে সংবাদটি ছিল নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজারে উপজেলার কাশু চেয়ারম্যান এর গ্রেফতার নিয়ে।’

‘এই সূত্রধরে আড়াইহাজার এলাকার শাহীনুর আড়াইহাজারীর নামের একজনের সাথে যোগাযোগ করে তার ফেইসবুক আইডিতে জামালের ছবি পাঠাই। শহীনুর সেই ছবি তার পেইজে আপলোড করে। সেই ছবি দেখে হিমেল নামে একজন কমেন্ট করে তাকে সে চিনতে পারেন। তারপর হিমেল রাতেই ওই বাড়িতে খবর পাঠায়।’

এরপরের ঘটনা মিলনের, আনন্দের। ছেলেকে নিতে ছুটে আসেন ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধা মা ও তার ভাগনে মানিক শিকদার ও আত্মীয় আল আমিন। জামানের মা এসেছেন শুনে বাজারে জড়ো হন স্থানীয়রা। ভালোবাসা দিয়ে বিদায় দেন সবার ফরমায়েস খাটা প্রিয় ‘জামাল’।

শাহীনুর আড়াইহাজারী মুঠোফোনে জানান, শনিবার খাসের হাট থেকে ছেলেকে নিয়ে রোববার ভোরে আড়াইহারের এসে জামান ভুইয়ার বোনের বাড়িতে ওঠেন। পরে দুপুরে গোপালদী পৌরসভার লক্ষিবরদী বাড়িতে যান।

তিনি আরো বলেন, রোববার দুপুর থেকে আমি ওই বাড়িতে অবস্থান করছি। তার বাবা আব্দুল গনি ভুইয়া র্দীঘ দিন ধরে প্যালাইজড রোড়ে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় শুয়ে আছেন। তার বাবা ও মেঝ ভাইও মানসিক প্রতিবন্ধী। পুরো পরিবারটি আর্থিক কষ্টে দিনযাপনর করছেন। অর্থের অভাবে বাবার চিকিৎসা করানো যাচ্ছে না। বিত্তবান ব্যক্তিদের এই পরিবারের দিকে এগিয়ে এসে সহায়তার হাত বাড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech