বগুড়ার মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে

  

পিএনএস, বগুড়া প্রতিনিধি : সর্বনাশা মাদকের বিরুদ্ধে বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভুঞা বিপিএম জিরো টলারেন্স ঘোষনার পর থেকে মাদক স্পটগুলোর চেহারা বদলে গেছে। পুলিশ সুপারের কঠোরতায় কমেছে বিভিন্ন ধরনের অপরাধ। ছিনতাই প্রবনতা নেই বললেই চলে। জেলার ১২টি উপজেলায় মাদক কেনা-বেচার স্পটে চলছে পুলিশ ও ডিবির অভিযান। মাদকদ্রব্য নিয়ে ধরা খেয়েছে বড়বড় রাঘববোয়াল। আনাচে কানাচে চলছে মাদক বিরোধী অভিযান। আটক এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাও ঘটেছে। ইয়াবা, ফেন্সিডিল, গাজাসহ ভয়াবহ মাদকের বেচা-কেনার স্পটগুলোতে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে মাদকের ব্যবসা। ধরপাকর অবস্থা বিদ্যমান থাকায় অনেক মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে। ফলে জনপ্রতিনিধি সহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষের মুখে মুখে বগুড়া জেলা পুলিশকে নিয়ে চলছে ব্যাপক প্রসংশা।

বগুড়া-৪ আসনের সাংসদ একেএম রেজাউল করিম তানসেন বলেন, জেলা পুলিশ সুপারের দক্ষতা সত্যিই প্রসংশার দাবিদার। আমি জেনেছি, মাদকের বিষয়ে তিনি কাউকেই ছাড় দেননি। আগের দিনেরমত বগুড়া জেলায় মাদক ও ছিনতাই প্রবনতা নেই।

বগুড়া জেলা পরিষদের সদস্য মাফুজুল ইসলাম রাজ বলেন, মাদক বিরোধী কনসার্ট, সভা, সমাবেশ, উঠান বৈঠক সহ বিভিন্নভাবে সাধারণ মানুষের মধ্যে গনসচেতনতা গড়ে তুলেছেন পুলিশ সুপার। ফেসবুকের মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ীদের তথ্য গ্রহন করছেন তিনি নিজেই। এতে করে তথ্যদাতার পরিচয় গোপন থাকছে। ফলে অপরাধীদের তথ্য মুহুর্তের মধ্যেই পেয়ে যাচ্ছেন পুলিশ সুপার। এরপর যাচাই বাছাই শেষে অভিযানে নামছেন তিনি। পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভুঞা বগুড়া জেলায় যোগদানের পর থেকেই মাদক ও ছিনতাই রোধে কঠোর ভুমিকা রেখেছেন। ফলে অপরাধ প্রবনতা হ্রাস পেয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান মুঠোফোনে বলেন, মাদকের সাথে যারা সম্পৃক্ত, তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হচ্ছে না এবং হবে না। অপরাধী যেই হোক, যে দলেরই হোক, যতবড় ক্ষমতাধরই হোক, কাউকেই ছাড় নেই। বগুড়ায় আসার পূর্বে জেনেছি, বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা বিপিএম স্যার মাদকের বিষয়ে কঠোর থেকে আরও কঠোর। এমন এসপি স্যারের দিকনির্দেশনায় কাজ করার সুযোগ পেয়ে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।

নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন বলেন, পুলিশ সুপার স্যারের কঠোর নির্দেশে মাদকের সব আখড়া ভেঙে দেওয়া হয়েছে এবং অভিযান চলমান রয়েছে। যারা মাদক ব্যবসা করে তাদের বলতে চাই, কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। তবে নিরীহ লোকের ভয়ের কোনো কারণ নেই। মাদকের বিরুদ্ধে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহন করে সকল অফিসার ও ফোর্স একযোগে কাজ করে যাচ্ছি।

বগুড়ার গোয়েন্দা পুলিশের ওসি নুরে আলম সিদ্দিকী জানান, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক, ছিনতাই নির্মূলে আমাদের অভিযান চলমান। অপরাধ দমন ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণে পুলিশ সুপার স্যারের কঠোর নির্দেশে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech