সিলেট জেলা বিএনপি সভাপতির বাসায় পুলিশের গুলি, ৫ কর্মী আটক

  

পিএনএস ডেস্ক : সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীমের বাসায় গুলি চালিয়ে ৫ কর্মীকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। এ সময় পুলিশ প্রায় এক ঘন্টা ওই বাসা ঘেরাও করে রাখে। পুলিশ বলছে, বাসার ভেতর থেকে পুলিশের উপর হামলা চালানো হলে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি ছুঁড়েছে।

বিএনপির সভাপতি শামীমের দাবি, পুলিশ তার বাসায় গুলি চালিয়ে নেতাকর্মীদের ধরে নিয়ে গেছে। সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদের মাতা চম্পা খানমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে রোববার বাদ আসর নগরীর সোবহানীঘাটস্থ মৌবন জামে মসজিদে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

সিলেট জেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত এ মিলাদ মাহফিলে জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম ছাড়াও জেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক অ্যাডভোকেট এম. নুরুল হক, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান, আশিক উদ্দিন চৌধুরী, এ.কে.এম. তারেক কালাম, হাজী শাহাব উদ্দিন, জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, ওসমান গণি, জেলা উপদেষ্টা আহমেদুর রহমান চৌধুরী মিলু, মাজহারুল ইসলাম ডালিম, হাজী বাবুল মিয়া, জেলা যুগ্ম সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন, ইসতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদত মাহবুব চৌধুরী, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন, মহানগর দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম আলো, জেলা দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. ফখরুল হক সহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মিলাদ শেষে কয়েকজন নেতাকর্মীকে নিয়ে নিজ বাসায় আসেন আবুল কাহের শামীম। এ সময় শাহপরান থানা পুলিশ এসে তার বাসা ঘেরাও করে। আবুল কাহের শামীম জানিয়েছেন, মিলাদ শেষে আমার সঙ্গে ৪-৫ জন কর্মী বাসায় আসে।

তাদের নিয়ে আমি বসা ছিলাম। এ সময় পুলিশ এসে তার বাসা ঘেরাও করে।

এক পর্যায়ে তারা গুলি ছুঁড়ে ৫ কর্মীকে ধরে নিয়ে গেছে। শাহপরান থানার ওসি আক্তার হোসেন জানিয়েছেন, মৌবনের ওই বাসায় নাশকতার জন্য বৈঠক চলছিল বলে পুলিশের কাছে খবর ছিল। এ সময় পুলিশ এলাকায় আসলে তাদের উপর হামলা চালানো হলে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। এ সময় ৫ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech