সুন্দরগঞ্জে চরাঞ্চলের ২৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কমে গেছে

  

পিএনএস, সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় বন্যার পানিতে ৭টি ইউনিয়নের চরাঞ্চলও নিম্নাঞ্চলের প্রায় ৭ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে মানবেতন জীবন যাপন করছে। এছাড়াও বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় কোমলমতি শিশুদের নিরাপত্তার লক্ষ্যে প্রায় ২৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমেগেছে। বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে প্রায় ৬শ হেক্টর জমির আমন ধানের ক্ষেত,বীজতলা ও বিভিন্ন ফসল। পানির তীব্র ¯্রােতে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর চন্ডিপুর,কঞ্চিবাড়ী,কাপাসিয়া ও শ্রীপুর ইউনিয়নে গত ১০ দিনে নদী ভাঙ্গনে অন্তত ৫ হাজার পরিবার ভিটাবাড়ী হারিয়ে গৃহহীন হয়ে পড়েছে।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের ভাটি কাপাসিয়া চরের আশ্রয়ণ প্রকল্পের বেশির ভাগ অংশ নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। এ সব গৃহহীন পরিবার উচু জায়গা ও বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়ে খোলা আকাশের নিচে বাস করছে। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ বলেন চরাঞ্চলের বিদ্যালয়গুলোর মাঠে বন্যার পানি উঠেছে। ফলে শিক্ষার্থীর উপন্তিথি অনেকাংশে কমে গেছে। এলাকার রাস্তাঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় আসতে পারছে না।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা ত্রাণ ও পূনর্বাসন কর্মকর্তা নুরুন্নবী সরকার বলেন বর্ন্যাত মানুষের তালিকা করে ইতিমধ্যে তাদের মাঝে শুকনা খাবার ও চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech