হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ ফেলে পালালেন স্বামী

  

পিএনএস ডেস্ক : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা করার পর হাসপাতালে লাশ ফেলে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে মো. টিপু (২৮) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

ওই গৃহবধূর নাম রোমানা আকতার (১৯)। মিরসরাই পৌরসভার বটতলী এলাকার মৃত জাহাঙ্গীর আলমের মেয়ে রোমানা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, রোমানা তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। গতকাল রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে রোমানাকে নিয়ে হাসপাতালে আসেন টিপু। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা করে রোমানাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপরই তাঁর স্বামী টিপু সেখান থেকে সটকে পড়েন। টিপুর বাড়ি উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের পূর্ব দুর্গাপুর গ্রামে। বাবার নাম জসিমউদ্দিন। এক বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়।

রোমানার মা নূরজাহান বেগম বলেন, আজ সকাল আটটায় টিপুর এক প্রতিবেশীর কাছে মেয়ের মৃত্যুর খবর জানতে পারেন তিনি। মেয়ের বাবা নেই। তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করেন। তাঁর অভিযোগ, যৌতুকের জন্য রোমানার ওপর অত্যাচার চালাতেন টিপু। বিয়ের সময় টিপু ১ লাখ ১০ হাজার টাকা যৌতুক নিয়েছিলেন। তাঁকে একটি আলমারি দেওয়ার কথা ছিল। টাকার অভাবে তখন তা দিতে পারেননি। আলমারির জন্য মেয়ের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিলেন টিপু। মেয়ে লজ্জায় তা জানাতে চাইত না। এ ছাড়া সন্তান হচ্ছিল না বলেও নির্যাতন করতেন।

জোরারগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আলাউদ্দিন বলেন, রাতে হাসপাতাল থেকে খবর পেয়ে রোমানার লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল করা হয়। তাঁর গলার চারপাশে গোলাকার দাগ দেখা যায়। সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুরো ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ঊর্মি রায় বলেন, গতকাল রাত ৯টা ৫৫ মিনিটে রোমানা আকতার নামের এক গৃহবধূকে তাঁর স্বামী হাসপাতালে আনেন। পরীক্ষা করে তাঁকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তাঁর গলার চার পাশে দাগ ছিল। অনেকক্ষণ অপেক্ষা করে কাউকে না পেয়ে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় টিপু বা তাঁর পরিবারে কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech