সেনবাগের গৃহবধূ হত্যায় স্বামী ও দেবর গ্রেফতার

  

পিএনএস (নোয়াখালী প্রতিনিধি) : নোয়াখালীর সেনবাগে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ জাহেদা খাতুন প্রকাশ মাম্মি (২০) হত্যার সাড়ে তিন মাস পর পলাতক ঘাতক স্বামী আলী আহম্মদ প্রকাশ সোহল (৩০) ও দেবর আবুল কালাম আজাদ প্রকাশ রুবেলকে (২৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ফেনীর সোনাগাজীর আবতাবি পাড়ার হকদি গ্রামের সদরউদ্দিনের বাড়ি থেকে সোহেলকে ও তার স্বীকারোক্তিতে ফেনী শহরের শাহীন একাডেমি এলাকার টমটম চালক আলা উদ্দিনের বাসা থেকে রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকান্ডের ঘটনা স্বীকার করেছ বলে জানায় পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে জবানবন্দী রেকর্ড করার জন্য নোয়াখালী বিচারিক আদালতে গ্রেফতারকৃত দুইজনকে প্রেরণ করা হয়।

ওই হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটেছে গত বছর ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ভোরে সেনবাগ উপজেলার উত্তর রাজারামপুর গ্রামের আবুল হোসেনের বাড়িতে। নিহত গৃহবধূ মাম্মির আট মাস বয়সের ইয়াসমিন আকতার নামে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

জানা যায়, ঘটনার আগের দিন রাতে মাম্মির স্বামী ঘাতক আলী আহম্মদ সোহেল, দেবর আবুল কালাম আজাদ প্রকাশ রুবেল, ভাসুর ওয়াসিম ও পরিবারের লাকজন যৌতুকের দাবীতে মাম্মিকে মারধর করে এক পর্যায়ে গলায় ওড়না পেছিয়ে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে। পরে লাশ ঘরের ভুতুরের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার করে। এমনকি গৃহবধূর লাশ পার্শ্ববতী দাগনভূঁইয়া হাসপাতালে রেখে পরিবারের সবাই পালিয়ে যায়।

পরে খবর পেয়ে মাম্মির মা রাহেলা আক্তার সহ পরিবারের লোকজন হাসপাতালে গিয়ে মাম্মির লাশ শনাক্ত করেন। এরপর সেনবাগ থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় মাম্মির জেঠা আবদুর আউয়াল বাদি হয়ে সেনবাগ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে।

নিহত মাম্মির মা রাহেলা আক্তার জানায়, ২০১৭ সালের ২৪ এপ্রিল মাম্মিকে বিয়ে দেন একই উপজেলার ৭নং মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের উত্তর রাজারামপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে সোহেলের সাথে। বিয়ের পর থেকে মেয়ের জামাই সোহেল যৌতুক দাবি করে আসছিলো। দাবীকৃত যৌতুক না পেয়ে ওইরাতে তার মেয়েকে মারধর করে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে মেয়ের জামাই, দেবর ও ভাসুরসহ ও পরিবারের লোকজন। পরে তার লাশ দাগনভূঞা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করলে তারা মাম্মির লাশ হাসপাতালে রেখেই তারা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত দুই আসামিতে গ্রেফতারের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতারকৃতদের নোয়াখালীর বিচারিক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech