কালীগঞ্জ পৌর এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

  


পিএনএস ডেস্ক: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌর এলাকার অবৈধ স্থাপনার লাল নিশানা চিহ্নিত স্থান ধরে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে পৌর কর্তৃপক্ষ। বুধবার সকাল হতে শহরে বুলডোজার মেশিন দিয়ে অবৈধ স্থাপনা দখলমুক্ত করছে। এই অভিযানের ফলে জনমনে স্বস্তি দেখা দিয়েছে।

শহরকে যানজটমুক্ত করা ছাড়াও নাগরিক সেবা নিশ্চিতকরণের জন্য অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান পৌর কর্তৃপক্ষ।

কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ জানান, কালীগঞ্জ একটি ব্যস্ততম শহর। শহরের মধ্যকার সরকারী জায়গা দখলদাররা দখল করে নানা স্থাপনা নির্মাণ করেছে। ফলে শহরের মধ্যকার সড়কগুলো সরু হয়ে যাওয়ায় যানজট হয়েছে নিত্যসঙ্গী। এছাড়াও দখলদারদের বেপরোয়া দখলবাজির কারণে সরকারী জায়গা হাতছাড়া হচ্ছে। এ কারণেই পৌর কর্তৃপক্ষ উদ্যোগ নিয়েছে এ সমস্ত দখলী জমি পুণরুদ্ধার করতে এবং শহরকে যানজট মুক্ত করতে। এছাড়াও নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে এ অভিযান।

তিনি আরও বলেন, এর আগে ম্যাপ ধরে শহরে সকল স্থানে পরিমাপের মাধ্যমে অবৈধ স্থাপনায় লাল নিশানা দেয়া হয়। অবৈধ স্থাপনা নির্মানকারীদের নিজেদেরকে স্থাপনা ভেঙে নেয়ার জন্য গত ২০ জুন পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়ে শহরে একাধিকবার প্রচার মাইক বের করা হয়। সে সময়ে প্রচার করা হয় নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা নিজেরা সরিয়ে না নিলে পরবর্তীতে ভাংচুরের খরচও দখলদারদের বহন করতে হবে। তাদের সে সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ায় পৌর কর্তৃপক্ষ এখন নিজেরা বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে। ফলে এখন অবৈধ উচ্ছেদ অভিযানের খরচও দখলদার দিতে হবে।

পৌর নাগরিকদের দাবি, অল্প কয়েকজন দখলদারের কারণে নাগরিক সুবিধা বাধাগ্রস্ত হতে পারে না। দখলদারদের সীমাহীন দখলবাজির কারণে সারাবছর দুর্বিসহ যানজট পোহাতে হয় পৌর নাগরিক ও পথচারীদের। এভাবে চলতে পারে না।

এদিকে, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন কালীগঞ্জের সকল শ্রেণী পেশার মানুষসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনও।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech