চাঁদপুর জেলার শীর্ষে ড. মনসুর উদ্দীন মহিলা কলেজ ॥ কচুয়ায় এইসএসসিতে জিপিএ-৫ পেল ৯৫ জন, পাসের হার ৯৬.১৪ %

  

পিএনএস, আফাজ উদ্দিন মানিক, (চাঁদপুর প্রতিনিধি) : কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ২০১৯ সালের এইসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বুধবার প্রকাশিত হয়। কচুয়া উপজেলার ৯টি কলেজ থেকে সর্বমোট ২ হাজার ১শ ৫৫জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ ২ হাজার ৭২জন কৃতকার্য হয়। শতকরা পাসের হার ৯৬.১৪। তন্মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৯৫ জন শিক্ষার্থী।

জিপিএ ৫ এর প্রাপ্তির দিক থেকে ড. মনসুর উদ্দীন মহিলা কলেজ জেলার শীর্ষে রয়েছে। এ কলেজ থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬২ জন। ব্যবসায় শিক্ষায় ২৫জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৫জন কৃতকার্য, মানবিকে ৭০ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৭০ জন কতৃকার্য ও বিজ্ঞান বিভাগে ৭৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ ৭৯ জন কৃতকার্য হয়। এই কলেজ থেকে সর্বমোট ১৭৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে শতভাগ কৃতকার্য হয়।

আশেক আলী খান স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ৮৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৮৫জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ৮৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৮৯ জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ৮৩জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৮৩জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ২৫৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৫৭জন কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ১৫ জন, শতকরা পাসের হার শতভাগ। চাঁদপুর এমএ খালেক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ৩৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৮জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ৩৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৯ জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ২৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৪জন কৃতকার্য হয় । এ কলেজ থেকে সর্বমোট ১০১ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ শতভাগ কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ৩ জন। এছাড়া কচুয়া বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ১৪১জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১২৩জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ১৮৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১৬৫ ও বিজ্ঞান বিভাগে ১৬২জন অংশ গ্রহণ করে ১৬০জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ৪৮৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৪৪৮জন কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ৭ জন, শতকরা পাসের হার ৯১.৯৯। সাচার ডিগ্রি কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ৯৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৯৪জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ১১৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১১৩জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ৬৩জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ ৬১ জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ২৮১ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৬৮জন কৃতকার্য হয় এবং শতকরা পাসের হার ৯৫.৩৭। পালাখাল রোস্তম আলী ডিগ্রি কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ২২৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১১৬জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ১৭৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১৬২ জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ১০৫জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১০২জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ৪০৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৮০জন কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ৪ জন, শতকরা পাসের হার ৯৩.৮৩। নুরুল আজদ কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ১১জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৯জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ২৯জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৪জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ৮জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৮জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ৪৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৪১জন কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ১ জন শতকরা পাসের হার ৮৫.৪২। নিন্দপুর এমকে আলমগীর স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ৩০ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৮জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ৮৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহন করে ৮৩জন কৃতকার্য হয় ও বিজ্ঞান বিভাগে ২২জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২২ জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ১৩৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১৩৩জন কৃতকার্য হয় এবং শতকরা পাসের হার ৯৫.৬৮। রহিমানগর শেখ মজিবুর রহমান ডিগ্রি কলেজ থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় ৯৯জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৯৯জন কৃতকার্য হয়, মানবিকে ১২৯ জন পরীক্ষার্থী থেকে ১২৮জন কৃতকার্য ও বিজ্ঞান বিভাগে ৩২ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩০ জন কৃতকার্য হয়। এ কলেজ থেকে সর্বমোট ২৬৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৬০ জন কৃতকার্য হয় এবং জিপিএ৫ পেয়েছে ৩ জন শতকরা পাসের হার ৯৮.৮৬।

কচুয়ায় আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেল ১ জন, পাসের হার ৮৭.৩০ :
কচুয়ায় এবারের আলিম পরীক্ষার পাসের হার ৮৭.৩০। তন্মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ জন শিক্ষার্থী। উপজেলার ১৩টি মাদ্রাসা থেকে ৪৯৬জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে ৪৩৩জন পরীক্ষার্থী কৃতকার্য হয়েছে। নিশ্চিন্তপুর ডিএস কামিল মাদ্রাসা থেকে ৬৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৬৪জন কৃতকার্য হয়। পাশের হার ৯৪.১২। চৌমুুহনী দারুস সুন্নাহ ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা ৪৮জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৪৫জন কৃতকার্য হয়। পাশের হার ৯৩.৭৫। চাপাতলী ইসলামী ফাযিল মাদ্রাসা থেকে ৩৮জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৬ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৯৪.৭৪। আইনগিরী আলিম মাদ্রাসা থেকে ৩৪জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৯ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৮৫.২৯। বিতারা আলিম মাদ্রাসা থেকে ৪৬জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৮ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৮২.৬১।

কাদলা ইসলামীয়া ফাযিল মাদ্রাসা থেকে ৪৫জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৪২ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৯৫.৪৫। মনপুরা ইসলামীয়া ফাযিল মাদ্রাসা থেকে ২৩জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২১ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৯১.৩০। মেঘদাইর ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ২৩জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২২ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৯৫.৬৫। আশ্রাফপুর গনিয়া ইসলামী ফাযিল মাদ্রাসা থেকে ৫১ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৩৬ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৭০.৬৯। মনোহরপুর ইসলামী ফাযিল মাদ্রাসা থেকে ৪৬জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ৪২ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৯১.৩০। রাগদৈল ইসলামীয়া আলিম মাদ্রাসা থেকে ২৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২৪ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৮৮.৮৯। পালাখাল ছালেহীয়া আলিম মাদ্রাসা থেকে ২৭জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ২২ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৮১.৪৮। শ্রীরামপুর ইসলামীয় মোহাম্মদীয় আলিম মাদ্রাসা থেকে ২০জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে ১২ জন কৃতকার্য হয়। পাশের ৬০.০০। ১৩টি মাদ্রাসার মধ্যে শুধুমাত্র চৌমুহনী দারুস সুন্নাহ আলিম মাদ্রাসা থেকে ১জন জিপিএ- ৫ অর্জন করে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech