পলাশে চুরির অপবাদ দিয়ে বৃদ্ধকে নির্যাতন, মামলা করায় বাড়িছাড়া

  

পিএনএস, নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদীর পলাশে চুরির অপবাদ দিয়ে আ. আহাদ খান (৬৬) নামে এক বৃদ্ধকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করার পর থেকে আসামিদের ভয়ে এলাকা ছাড়া ওই বৃদ্ধাসহ তার স্ত্রী। মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার চরসিন্দুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ও তার ছেলে সোহাগ মিয়া, দিপু মিয়াসহ ১৪ জন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, সম্প্রতি চরসিন্দুর ইউনিয়নের মালিতা গ্রামে ট্রলির ব্যাটারি চুরির অপবাদ দিয়ে ৬৬ বছরের বৃদ্ধ আহাদ খানকে গত ২৩ আগস্ট বিকাল ৪ থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অমানবিক নির্যাতন চালায় স্থানীয় ইউপি সদস্য সহ অভিযুক্তরা। এসময় স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে মারধরের শিকার হতে হয় স্ত্রী শিরিন বেগমকেও। একপর্যায়ে গ্রামবাসী জড়ো হতে থাকলে অচেতন অবস্থায় ওই দম্পত্তিকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায় অভিযুক্তরা। পরে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ওই দম্পত্তিকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শিরিন বেগম বাদি হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য সহ ১৪ জনকে আসামী করে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত ওই বৃদ্ধা দম্পত্তিকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে অভিযুক্তরা। এমনকি ওই দম্পত্তিকে নিজের বাড়িঘরেও থাকতে দিচ্ছে না। এদিকে এ ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় সাংবদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করেন। তথ্য সংগ্রহের পর ক্ষিপ্ত হয়ে আবারও শিরিন বেগমকে মারধর করা হয়।

ভুক্তভুগী শিরিন বেগম জানান, আমরা নিঃসন্তান থাকায় প্রতিবেশি আওয়ামীলীগ নেতা আবুল কাশেম দীর্ঘদিন যাবত অল্প দামে আমার বসতভিটা ওনার কাছে বিক্রি করে দেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। জমি বিক্রি করতে রাজি না হওয়ায় তারা আমার নিরাপরাধ স্বামীকে চোর সাজিয়ে অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে আমাদেরকে গ্রাম ছাড়া করে। এ বিষয়ে মামলা করেও কোনো বিচার পাচ্ছি না। আসামীদের হুমকির কারণে নিজের বাড়িতেও থাকতে পারছি না।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য নাসির উদ্দিন বলেন, ঘটনার দিন এলাকাবাসী চোর সন্দেহে ওই বৃদ্ধকে আটক করে খবর দিলে তাকে হালকা বিচার করে ছেড়ে দেওয়া হয়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চুরির অপবাদের বিষয়টি আমার জানা নেই।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই, নরসিংদীর উপ-পরিদর্শক সুজন কুমার দাস জানান, প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। এছাড়া ঘটনার সময় নির্যাতনের ভিডিও চিত্রও পাওয়া গেছে। দ্রুত অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech