ট্রেনের ধাক্কা থেকে অল্পের জন্যে রক্ষা পেল যাত্রীসহ ইজিবাইক

  

পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় রেলক্রসিংয়ে যাত্রীসহ ইজিবাইক আটকে আন্তঃনগর দ্রুতগামী ট্রেনের ধাক্কা থেকে অল্পের জন্যে রক্ষা পেলো । আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় আখাউড়ার লাল বাজার রেলক্রসিংয়ে ঢাকা – চট্টগ্রাম আন্তঃনগর দ্রুতগামী সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেন আখাউড়া অতিক্রম করার সময় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় রেল গেইট বন্ধ না হয়ে খোলা থাকায় ট্রেন আসার সিগনাল না দেখেই ২টি ইজিবাইক যাত্রীসহ রেলক্রসিংয়ে পৌঁছে আটকে পড়ে। তখন যাত্রীদের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী জনতা এগিয়ে যেয়ে যাত্রীসহ ইজিবাইক সরানোর কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই ট্রেনটি অতিক্রম করে চলে যায়। এ সময় বড় ধরণের একটি অনাকাঙ্খিত ট্রেন দুর্ঘটনায় প্রাণহানি থেকে রক্ষা পেলো ইজিবাইক যাত্রীরা।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মোবাশ্বের আহসান বলেন, ‘আমি দেখতেছি সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি কাছাকাছি এসে গেছে এবং ড্রাইভার ঘন ঘন হুইসেল বাজাচ্ছে। আবার এদিকে দেখি,,রেল গেইট খোলা থাকায় ২টি ইজিবাইক সরাসরি রেলক্রসিংয়ে এসে আটকে গেছে । সামনে ও পিছনে যেতে পারছে না। যাত্রীরা বাঁচার জন্যে চিৎকার করছে। তখন আমি ও অন্যরা সবাই মিলে তড়িৎ গতিতে যাত্রীদের নামিয়ে ইজিবাইকটি নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়েছি এবং এর ঠিক ৩ সেকেন্ডের মধ্যেই ট্রেনটি অতিক্রম করে যায়, আর বড় ধরণের প্রাণহানি রক্ষা করা সম্ভব হয়’। তিনি আরও বলেন, আমরা গেইটম্যানকে গেইট বন্ধ না করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাকে কেবিন মাষ্টার কোন সিগন্যাল দেয়নি তাই গেইট লাগাতে পারিনি।এ বিষয়ে জানতে চাইলে আখাউড়া জংশন স্টেশন মাষ্টার খলিলুর রহমান বললেন, এমন হওয়ার কথা না কারণ গেইট লক না করলে ট্রেন ক্লিয়ারেন্স সিগনাল পাবে না এটা স্বয়ংক্রিয় সিস্টেমে চলে। এ সময় গেইট খোলা ছিলো। লোকজন দেখেছে, নইলে ইজিবাইক ঢুকলো কিভাবে? এ প্রশ্ন করলে খলিলুর রহমান বললেন, হয়তো তারা গেইট ধাক্কা দিয়ে উপরে তুলে প্রবেশ করেছে। তারপও আমি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech