দিনাজপুরে জাতীয় পার্টির সংবিধান সংরক্ষণ দিবস ও আলোচনা সভা

  

পিএনএস, দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুর জেলা জাতীয় পার্টির উদ্ব্যেগে সংবিধান সংরক্ষণ দিবস ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি দিনাজপুর জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আহমেদ শফি রুবেল উপরোক্ত কথা বলেন।

৬ ডিসেম্বর শুক্রবার সন্ধায় সংবিধান সংরক্ষণ দিবস উপলক্ষে কালিতলাস্থ জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি এ্যাডঃ নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পার্টির প্রধান উপদেষ্টা আব্দুস সামাদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি এ্যাডঃ আমিনুল ইসলাম পুতুল, মীর তৌহিদুল ইসলাম স্বপ্ন ও সাইফুল্লাহ চৌধুরী।

এ ছাড়া সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলাম, আইন বিষয়ক সম্পাদক রায়হানুর রহমান বাবু, পৌর সদস্য সচিব মমতাজ আহমেদ, স্বেচ্ছাসেবক পার্টি সদস্য সচিব মীর মোঃ আনিসুজ্জামান মিলন, প্রচার সম্পাদক রাইসুল ইসলাম লাবলু, মহিলা সম্পাদিকা ও পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া বেগম লাইজু, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক নাসিম খান পিরু, সহ-সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আনোয়ার হোসেন, পৌর আহ্বায়ক আব্দুল মোতালেব, জেলা ছাত্রসমাজের সভাপতি একেএম নওশাদ ফরহাদ, জেলা সদস্য বাবু, আজিমুদ্দিন, খায়রুল, সোনা প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বলেন, জাতীয় পার্টি একমাত্র দল যারা সংবিধানকে সংরক্ষণ করার স্বার্থে বিনা রক্তপাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করেছে। পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু আলহাজ্ব হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ দেশের মানুষের দিকে তাকিয়ে ক্ষমতার মোহের উর্দ্ধে উঠে সেদিন পদত্যাগ করেছিলেন। সংবিধান রক্ষার জন্য এটি একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। যারা তাকে সেদিন স্বৈরাচার বলেছিল পরবর্তীতে তাদের শাসনামল আরো বড় স্বৈরাচারে ভরা হয়ে ফুটে উঠেছে। এক নুর হোসেনকে নিয়ে যত কাহিনী তৈরি করা হয়েছে। পরবর্তীতে শত নয় হাজারও নুর হোসেন তৈরি হলেও কোন কাহিনী বানানো হয়নি। মূলত জাতীয় পার্টিকে একটি অপরাজনীতির শিকার হতে হয়েছে। বাংলাদেশের উন্নয়নের ৮০ ভাগ উন্নয়ন পল্লীবন্ধু শাসনামলে হয়। আর পরবর্তীতে এতো বছরেও তার কাছে যেতে পারেনি কোন সরকার। এ থেকেই বোঝা যায় জনগণের প্রকৃত বন্ধু কারা। মরহুম হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে নিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতিতে নানা অপকৌশল করা হয়েছে। আজ তার মৃত্যুর পর সে অপকৌশল করার দিন শেষ হয়ে গেছে। তাই আগামী দিনে জাতীয় পার্টি আরো শক্তিশালী হয়ে দেশ সেবায় এগিয়ে আসবে। আমাদের কাছে এরশাদের আদর্শ সব সময় পাথেয় হয়ে থাকবে। তিনি যেভাবে জনগণের জন্য সংবিধান সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেছিলেন, আমরাও সেভাবে কাজ করবো। জাতীয় পার্টির সকল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের নেতৃত্বে কাজ করতে হবে। তার নির্দেশনা যথাযথভাবে বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে জাতীয় পার্টিকে আগামী দিনে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করতে হবে। তাহলে কবরে থেকে এরশাদও শান্তি পাবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন