প্রথমবার গাড়ি চালিয়ে বাড়ি গেলেন রাষ্ট্রপতির ছেলে

  



পিএনএস ডেস্ক: হাওর মানেই পানি। নদী-নালা-খাল-বিল। কিশোরগঞ্জের গভীর হাওরবেষ্টিত তিনটি উপজেলা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম। বহুযুগ ধরে এই তিনটি হাওরের মানুষের চলাচলের একমাত্র মাধ্যম ছিল নৌকা।

দুই দশক আগেও এই এলাকার মানুষ গাড়ি তো দূরের কথা একটি রিকশাও চোখে দেখেনি। সেই প্রত্যন্ত হাওরে চোখের সামনে প্রশস্ত উঁচু পাকা সড়ক ধরে চলছে দামি গাড়ি। নিজের বাড়ি হলেও প্রথম বারেরমতো কিশোরগঞ্জ থেকে দামি গাড়িতে করে মিঠামইন গেলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বড় ছেলে ও কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক।

এই প্রথম গাড়ি নিয়ে মিঠামইন থানার সামনে নামলেন কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ। বিষয়টি দেখে বিস্ময়ের ঘোর কাটেনি কারও। যেন স্বপ্নের মতো লাগছে তাদের।

তিনটি থানা পুলিশের ওসিদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে পিকআপের চাবি তুলে দেন এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক

দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কিশোরগঞ্জের হাওরের তিনটি থানায় দেয়া হয়েছে পুলিশের পিকআপ। সোমবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে মিঠামইন, ইটনা ও অষ্টগ্রাম থানায় তিনটি ডাবল কেবিন পিকআপ দেয়া হয়।

তিনটি থানা পুলিশের ওসিদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে পিকআপের চাবি তুলে দেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বড় ছেলে ও কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক।

পরে মিঠামইন থানা পুলিশকে দেয়া একটি নতুন পিকআপন ভ্যানের চালকের আসনে উঠে বসেন কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক। পাশের সিটে উঠে বসে পুলিশ সুপার (এসপি) মাশরুকুর রহমান খালেদ। এসপিকে সঙ্গে নিয়ে থানার পাশে খালি মাঠে পিকআপ চালান এমপি তৌফিক। এ সময় তিন থানার পুলিশ সদস্যদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। আনন্দ-উল্লাস আর ফুলের পাপড়ি দিয়ে দুই অতিথিকে স্বাগত জানানো হয়।

হাওরের তিন থানায় গাড়ি বিতরণ উপলক্ষে মিঠামইন থানা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন এসপি মাশরুকুর রহমান খালেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল ইসলাম সোপান, অষ্টগ্রাম সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এসএম আজিজুল হক, মিঠামইন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আছিয়া আলম, ইটনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান, ইটনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাফিজা আক্তার, মিঠামইন থানা পুলিশের ওসি মো. জাকির রাব্বানী, অষ্টগ্রাম থানা পুলিশের ওসি মো. কামরুল হাসান মোল্লা, ইটনা থানা পুলিশের ওসি মুর্শেদ জামান ও মিঠামইন সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী কামরুল হাসান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের এমপি রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক বলেন, কোনোদিন কল্পনাও করতে পারিনি মিঠামইন থানা পুলিশ গাড়ি পাবে। নিজে গাড়ি নিয়ে বাড়ি আসতে পারব। সবই স্বপ্নের মতো লাগছে। হাওরের অসম্ভবকে সম্ভব করে তোলায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে এসপি মাশরুকুর রহমান খালেদ বলেন, আজকের দিনটি আমার কাছে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। কোনোদিন ভাবিনি নিজের গাড়িতে করে মিঠামইন আসব। থানার সামনে নামার সময় বার বার অবাক হচ্ছিলাম। ভাবছিলাম স্বপ্ন দেখছি কিনা। আজকের মুহূর্ত ক্যামেরা বন্দি করে রাখলাম। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে গাড়িসহ থানার সামনে ছবি তুললাম।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলাকে সংযুক্ত করে প্রায় এক হাজার দেড়শ কোটি টাকা ব্যয়ে সারা বছর চলাচল উপযোগী নতুন সড়ক নির্মাণ করা হয়। রোববার (২৬ জানুয়ারি) ফেরি সার্ভিস উদ্বোধনের মাধ্যমে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের সঙ্গে হাওরের তিন উপজেলায় সড়ক পথে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

পিএনএস/হাফিজ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech