আটকের ৩ দিন পর ওসির কক্ষে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ, ২ পুলিশ বরখাস্ত

  

পিএনএস ডেস্ক:আটকের ৩ দিন পর বরগুনার আমতলী থানার ওসির কক্ষ থেকে সানু হাওলাদার (৫০) নামে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকালে ওসি তদন্ত মনোরঞ্জন মিস্ত্রীর কক্ষের সিলিং ফ্যানে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। যদিও পুলিশ দাবি করেছে, আটক সানু হাওলাদার আত্মহত্যা করেছেন। তবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই কক্ষে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জন মিস্ত্রী ও ডিউটি অফিসার এএসআই আরিফকে দায়িত্বে অবহেলার কারণ দেখিয়ে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, নিহত সানু হাওলাদার আমতলীর কলাগাছিয়ার হযরত আলী হাওলাদারের ছেলে। গত বছরের ৫ নভেম্বর আমতলী উপজেলার গুশিয়াখালী ইউনিয়নের কলাগাছিয়ার গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে ইব্রাহিম নামের এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি পেশায় ছিলেন একজন গরু ব্যবসায়ী। ওই মামলায় এজাহারভুক্ত কোনো আসামি না থাকলেও পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় সানু হাওলাদারকে আটক করে।

তবে পুলিশ দাবি করছে, বুধবার (২৫ মার্চ) তাকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমতলী থানার ওসি আবুল বাশার বলেন, সানু হাওলাদারকে ২৫শে মার্চ আটকের পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জনের রুমে রাখা হয়। রাতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে কিছু ক্লু পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার সকালে থানার সেন্ট্রি ৫ টা ৫৬ মিনিটে বাথরুমে নিয়ে যায়। এরপর ফিরে এসে সানু দরজা বন্ধ করে দেয়। ৬ টা ১০ মিনিটে তার দরজা বন্ধ দেখে ধাক্কাধাকি করে খুলে সানু হাওলাদারের ঝুলন্ত লাশ দেখা যায়।

বরগুনা জেলা পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন পূর্বপশ্চিমকে জানান, সংবাদ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছি। এই ঘটনায় যার কক্ষে ওই ব্যক্তির মরদেহ পাওয়া গেছে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বরখাস্ত করা হয়েছে ডিউটি অফিসার এএসআই আরিফকে। ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তোফায়েল আহমেদকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মহরম আলী এবং সহকারী পুলিশ সুপার (আমতলী সার্কেল) রবিউল ইসলাম। এর মধ্যেই মরদেহের সুরতহাল করা হয়েছে। কমিটি ৭২ ঘন্টার মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

নিহত ব্যক্তি একটি হত্যা মামলার সংযুক্ত আসামি ছিলেন বলেও উল্লেখ করেন বরগুনা পুলিশের এই শীর্ষ কর্তা।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন