সেনবাগে ধর্ষণ মামলার আসামি বন্দুকযুদ্ধে নিহত

  

পিএনএস ডেস্ক : নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে (১৪) গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি আকরাম (২৫) পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার উত্তর মানিকপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত আকরাম উত্তর মানিকপুর গ্রামের আবদুল গফুরের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত ৬ জুন সকালে বাড়ির সামনে থেকে এক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে তুলে নিয়ে পাশ্ববর্তী একটি কবরস্থানে আকরাম, ফারুক ও ফাহিমসহ কয়েকজন গণধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে সেনবাগ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ফাহিম ও ফারুককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তবে মামলার প্রধান আসামি আকরাম পলাতক ছিলেন।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল বাতেন মৃধা বলেন, ‘গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আকরাম অর্জুনতলা ইউনিয়নের উত্তর মানিকপুর গ্রামে অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে অভিযান চালায় পুলিশ। তারা উত্তর মানিকপুর এলাকায় পৌঁছালে কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই আকরাম ও তার সহযোগিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুঁড়লে ১০-১৫ মিনিট ধরে চলা বন্দুকযুদ্ধে টিকতে না পেরে হামলাকারীরা পালিয়ে য়ায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে আকরামকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

ওসি আরও বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, দুইটি কার্তুজ, একটি চাইনিজ কুড়াল ও ছয়টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। আসামিদের সাথে বন্দুকযুদ্ধে সেনবাগ থানার এক এএসআই ও দুই কনেস্টবল আহত হয়েছেন। পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় অজ্ঞাত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

পিএনএস/এসআইআর


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন