গোপালগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

  

পিএনএস ডেস্ক : মধুমতি নদী ও কুমার নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গোপালগঞ্জ সদর, কাশিয়ানী ও মুকসুদপুর উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে তিন উপজেলার অন্তত ১৫টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার।

শুক্রবার সকালে জেলার মধুমতি নদী ও কুমার নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সদর উপজেলার উলপুর, নিজড়া, হরিদাসপুর, কাশিয়ানী উপজেলার সিংগা, হাতিয়াড়া, পুইশুর, মুকসুদপুর উপজেলার দিগনগর ইউনিয়নের অন্তত ১৫ গ্রামের ঘর-বাড়ী পানি ঢুকে যাওয়ায় ও সড়ক তলিয়ে যাওয়া বিপাকে পড়েছে ওইসব গ্রামের বাসিন্দারা। এসব এলাকায় নলকূপ তলিয়ে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট। সাথে ভেঙ্গে পড়েছে স্যানিটেশন ব্যবস্থা।

গোপালগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানাগেছে, মধুমতি নদীর পানি বিপদ সীমার ৩০ সেন্টিমিটার এবং মাদারীপুর বিল রুট ক্যানেল পয়েন্টে ২০ সেন্টিমিটার নিচে দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

কাঁচা ও আধাপাকা সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় চরম দূরবস্থার মধ্যে পড়েছে এসব এলাকার মানুষ। বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করায় বসবাসের অনুপযোগী হওয়ায় গবাদি পশু নিয়ে কাশিয়ানী উপজেলার সিংগা হাইস্কুল, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও রামদিয়া-উলপুর সড়ক এবং সদর উপজেলার উলপুর ইউনিয়নের উলপুর হাইস্কুলে শতাধিক পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।

কাশিয়ানী উপজেলার সিংগা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রণব সরকার জানিয়েছেন, বন্যায় আক্রান্ত ৩০৫টি পরিবারের তালিকা করা হয়েছে। এরমধ্যে ৯৬ টি পরিবারের জন্য উপজেলা প্রশাসন ত্রাণ পাঠিয়েছেন। বাকী পরিবারগুলোকে ত্রাণ দেয়া হবে।

পিএনএস/এসআইআর


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন