জামাইয়ের দায়ের কোপে স্ত্রী শ্বশুর শাশুড়ি জখম

  


পিএনএস ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে যৌতুলোভী এক জামাইয়ের দায়ের কোপে শ্বশুর, শাশুড়ি, স্ত্রী, স্ত্রীর বড় বোন ও তার তিন বছরের এক শিশু গুরুতর জখম হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে মহেড়া ইউনিয়নের স্বল্প মহেড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

যৌতুকের টাকা না পেয়ে ওই গ্রামের সিরাজ মিয়ার মেয়ের জামাই স্বপন মিয়া তাদের ঘরের ভেতর আটকিয়ে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন। এলাকাবাসী স্বপনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন।

আহতরা হলেন মহেড়া গ্রামের মৃত হবি মিয়ার ছেলে সিরাজ মিয়া (৬০), তার স্ত্রী সুর্যভানু বেগম (৫২), মেয়ে শিলা আক্তার (১৮), বড় মেয়ে রাজিয়া বেগম (২৫) ও তিন বছরের নাতনি (রাজিয়ার মেয়ে) তাইবা। আহতদের টাঙ্গাইল সদরে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, মির্জাপুর উপজেলার স্বল্প মহেড়া গ্রামের সিরাজ মিয়ার মেয়ে শিলা আক্তারের সঙ্গে একই উপজেলার জামুর্কী ইউনিয়নের পূর্ব-গোড়ান গ্রামের আতোয়ার হোসেনের ছেলে স্বপন মিয়ার (২৫) দুই মাস আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে মাদকাশক্ত স্বপন স্ত্রী শিলাকে মারপিট ও নানাভাবে নির্যাতন শুরু করেন। শিলা বিষয়টি বাবা-মাকে জানান। স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত কয়েকদিন আগে শিলা বাবার বাড়ি মহেড়া গ্রামে চলে আসেন।

শিলা বুধবার ঘটনাটি মহেড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. বাদশা মিয়াকে জানান। বৃহস্পতিবার সন্ধায় স্বপন চাকু ও দা নিয়ে শ্বশুর বাড়িতে আসেন। রাত ৮টার দিকে বাড়ির লোকজন কিছু বুঝে উঠার আগেই স্বপন ঘরে তালা দিয়ে শ্বশুর সিরাজ মিয়া, শাশুড়ি সুর্যভানু বেগম, স্ত্রী শিলা আক্তার, স্ত্রীর বড় বোন রাজিয়া বেগম ও তার তিন বছরের শিশু কন্যা তাইবাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন। পরে তাদের চিৎকারে আশপাশের বাড়ির লোকজন এসে দরজা ভেঙে তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে পাঠান। তখন উত্তেজিত গ্রামবাসী স্বপনকে গণধোলাই দেন। খবর পেয়ে পুুুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করে।

স্বপন বিয়ের আগে মারিসার্স ও সৌদি আরব থাকতেন। বাবা আতোয়ার হোসেনও কোরিয়া ও সৌদি আরব থাকতেন। ছোট ভাই ইমন সৌদি আরব প্রবাসী। বিদেশ থেকে এসে স্বপন দুই মাস আগে শিলাকে বিয়ে করেন। এর আগেও স্বপন গত ফেব্রুয়ারি মাসে আরেকটি বিয়ে করেছিলেন। মাত্র ১৭ দিনের দাম্পত্য জীবন শেষ হয় তার। প্রথম স্ত্রী তাকে ডিফোর্স দিয়ে চলে যায়। কিন্তু প্রথম বিয়ের কথা গোপন রেখে স্বপন শিলাকে বিয়ে করেন। এ বিষয়টি নিয়েও স্বামী স্ত্রীর মধ্যে মাঝে মধ্যে ঝগড়া হতো বলে গোড়ান ও মহেড়া গ্রামের লোকজন জানিয়েছেন।

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্বপনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন