চট করে বানিয়ে নিন কেমিক্যাল ফ্রি ঘরোয়া হেয়ার কালার

  

পিএনএস ডেস্ক : দেবীপক্ষ শুরু হয়ে গিয়েছে৷ তবে আজকাল ঘরে ঘরে দেবীদের যা কর্মব্যস্ততা তাতে লাস্ট মিনিট সাজেশনের মতই লাস্ট মিনিটে নিজেকে ঝকঝকে করে তোলা ছাড়া আর কোনও অপশন থাকে না৷ এখন অধিকাংশ মহিলাই ঘর-অফিস একসঙ্গে সামলান৷ সুতরাং দু’কূল সামলে নিজের জন্য সময় বের করা তাও আবার সাজগোজের জন্য ভাবাটাই বাতুলতা৷ তবু পুজোতো বছরে একবারই আসে৷ একটু কেতা না হলে কেমন লাগে!

আইটি সেক্টরে কাজ করেন সোদপুরের অনন্যা৷ খুব ইচ্ছে ছিল এ বছর চুলে কালার করবে৷ তেমন স্ট্রং নয়, হালকা একটা শেড এলেই হবে৷ কিন্তু মহালয়া চলে গেল সময়ই হল না৷ সপ্তমী অবধি অফিস৷ একই অবস্থা স্কুলটিচার মহুয়ারও৷ ছুটি পড়তে পড়তে সেই সপ্তাহ গড়িয়ে যাবে৷ আর পার্লারে যাবেনই বা কখন৷

চিন্তার কী আছে৷ ঘরোয়া পদ্ধতিতেই আপনি রাঙিয়ে নিতে পারেন আপনার চুলখানা৷ সময়ও একদম অল্প লাগবে৷ আর প্রয়োজনীয় জিনিসও পাওয়া কোনও ঝক্কির ব্যাপার নয়৷ দারুচিনি আর কফি৷ এই দুইয়ের মিশ্রনই আপনার চুলকে করে তুলবে হাল্কা আভাযুক্ত৷ আর তাও কোনও কেমিক্যাল ছাড়াই৷

এর জন্য আপনার দরকার কফি পাউডার, দারুচিনি গুঁড়ো, অ্যাপেল সিডার ভিনিগার আর জল৷ একটা বাটিতে আন্দাজমত দারুচিনি গুঁড়ো ও কফি পাউডার মেশান৷ খেয়াল রাখবেন কফি পাউডার ও দারুচিনি গুঁড়ো যেন সমান পরিমাণে নেওয়া হয়৷

দারুচিনি আর কফি পাউডার ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে তাতে কফির লিকার দিন৷ দেখবেন একেবারে যেন ট্যালট্যালে পাতলা না হয়ে যায়৷ সঙ্গে দিন ৫-৬ চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনিগার৷ ভালো করে পুরো মিশ্রণটি চামচ দিয়ে নেড়ে নিন৷

শ্যাম্পু করার পর চুলটা টাওয়েল দিয়ে মুছে একটু শুকিয়ে নিন৷ এবার মিশ্রনটি ভালো করে চুলে লাগান৷ স্ক্যাল্পে না লাগলেই ভালো৷ মোটামুটি মিনিট চল্লিশেক রেখে ইষৎ উষ্ণ গরম জলে চুল ধুয়ে নিন৷ যাদের চুল ড্রাই তারা ঠাণ্ডা জলেই চুল ধুয়ে নিন৷ চাইলে সেদিনই শ্যাম্পু করে নিতে পারেন৷ সুযোগ থাকলে এক রাত রেখে পরদিন শ্যাম্পু করুন৷ রং আরও খানিকটা গাঢ় হবে৷ দেখুন তো আপনার চুলের আগের রঙের সঙ্গে এখন কোনও তফাৎ নজরে আসছে কি না৷

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech