প্রতিদিন ইফতারের ব্যয় ২২৪ কোটি টাকা - অর্থনীতি - Premier News Syndicate Limited (PNS)

প্রতিদিন ইফতারের ব্যয় ২২৪ কোটি টাকা

  

পিএনএস ডেস্ক: রমজানে রোজাদারদের ব্যয় নিয়ে তেমন কোনো জরিপ বা গবেষণা হয়নি। তবে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও ব্যাংকার ড. মামুন রশীদের ২০১৪ সালে তৈরি করা এক জরিপ প্রতিবেদন থেকে রমজানে আর্থিক লেনদেনের একটি চিত্র পাওয়া যায়। যদিও এ হিসাবে ভিআইপি ইফতারের ব্যয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। আজকাল বড় রাজনৈতিক দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যন্ত ইফতারপার্টি চলে।

দেখা যায়, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও অঙ্গসংগঠন এবং সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো রমজানে স্বতন্ত্রভাবে ইফতারপার্টির আয়োজন করে থাকে। এর বাইরে ব্যক্তি উদ্যোগে পুরনো বন্ধুবাবান্ধব, সহকর্মী এবং প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টারের ব্যাচগুলোও ছোটবড় ইফতারপার্টির আয়োজন করছে।

এ জরিপ প্রতিবেদনের হালনাগাদ তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এবার প্রতিদিন রমজানে রোজাদারদের ইফতারের পেছনে সম্ভাব্য আর্থিক ব্যয় হবে প্রায় ২২৪ কোটি টাকা। এ হিসাবে পুরো রমজানে ইফতারসামগ্রীনির্ভর অর্থনৈতিক লেনদেন হবে ৬ হাজার ৭১৯ কোটি ২২ লাখ টাকা।

তথ্যমতে, দেশে বর্তমান জনসংখ্যা ১৬ কোটি ২৩ লাখের কিছু বেশি। এর ৪০ শতাংশ অর্থাৎ ৬ কোটি ৪৯ লাখ ২০ হাজার মুসলিম এ বছর রোজা রাখবেন। গ্রাম, মফস্বল, উপজেলা ও জেলাশহরসহ আট বিভাগীয় শহরের রোজাদারদের সামর্থ্য ও ইফতারের পেছনে ব্যয় করা অর্থের হিসাব ভিন্ন ভিন্ন হলেও আলোচ্য হিসাবে মাথাপিছু ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ টাকা ৫০ পয়সা। তবে রোজা রাখার মানুষের হার ৪০ শতাংশ হলেও প্রতিদিন ইফতারে সম্পৃক্ত হন ৯০ শতাংশ মানুষ।

এ হিসাব ধরা হলে প্রতিদিন রমজানে ১৪ কোটি ৬০ লাখের বেশি মানুষ প্রায় ৫০৪ কোটি টাকার ইফতার করেন। ফলে রমজানজুড়ে ইফতারনির্ভর অর্থনীতির পরিমাণ দাঁড়াবে ১৫ হাজার ১১৮ কোটি ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

ড. মামুন রশীদ তিন বছর আগে ২০১৪ সালের ২০ জুলাই এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। ওই প্রতিবেদনে তিনি তখনকার হিসাবে জনসংখ্যা দেখিয়েছেন ১৪ কোটি ৭০ লাখ। ওই জনসংখ্যার আনুমানিক ৪০ শতাংশ হিসাবে সে বছর ৫ কোটি ৮৮ লাখ মানুষের রোজা রাখার তথ্য দেন। এ পরিমাণ জনসংখ্যার ইফতারিতে পণ্য বাজারের চলতি অবস্থা মাথায় রেখে ব্যয়ের হিসাব দেখান গ্রাম থেকে শহর পর্যন্ত।

তিনি খরচের বিভিন্নমুখী তথ্য তুলে ধরে জানান, ইফতারে শামিল হন ৯০ শতাংশ মুসলমান। তারা শুধু একা বসেন না, ইফতারের সময় কাছে পেলে কিংবা দাওয়াত দিয়ে অমুসলমান ব্যক্তিদেরও অংশগ্রহণ করান। কমপক্ষে ৫ কোটি ৮৮ লাখ মানুষের ইফতারে মাথাপিছু নূ্ন্যতম ৩০ টাকা বরাদ্দ ধরলে দৈনিক ব্যয় হয় ১৭৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা। আর ১১ কোটি মানুষের ইফতার আমলে নিলে সংখ্যাটি দাঁড়াবে ৩৩০ কোটি।

ড. মামুন রশীদের এ তথ্যসূত্র ধরে এ প্রতিবেদনে আলোচ্য হিসাবে প্রতিবছর ৫ শতাংশ হারে তিন বছরের ১৫ শতাংশ মূল্যস্ফীতি যোগ করে প্রত্যেক রোজাদারের জন্য গড় ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ টাকার স্থলে ৩৪ টাকা ৫০ পয়সা।

পিএনএস/আল-আমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech