নতি স্বীকার মার্কিন প্রশাসনের

  


পিএনএস ডেস্ক: তীব্র আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটার সেই পুলিশ অফিসার ডেরেক চৌভিন (৪৪)’র বিরুদ্ধে হত্যা মামলার অভিযোগ থার্ড ডিগ্রি থেকে সেকেন্ড ডিগ্রিতে উন্নীত করা হয়েছে। গত ২৫ মে হাতকড়া পরিহিত জর্জ ফ্লয়েডের (৪৬) গলায় হাটু চেপে নির্মমভাবে হত্যা করেন চৌভিন। হতাকাণ্ডের সময় সেখানে দাঁড়িয়ে থাকার অপর তিন পুলিশ অফিসারকেও সেকেন্ড ডিগ্রি হত্যা মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে।

রাজপথের দাবি অনুযায়ী ফ্লয়েডকে হত্যার ৯ দিন পর মিনেসোটার এটর্নি জেনারেল কীথ এলিসন ৩ জুন বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

উল্লেখ্য, ফ্লয়েডকে বর্বরোচিতভাবে হত্যার সংবাদটি জানাজানি হয় একজন পথচারির সেলফোনে রেকর্ড করা ভিডিও ফুটেজ থেকে। মিনিয়াপলিস সিটিতে সংগঠিত এই পাশবিকতার বিরুদ্ধে সারা আমেরিকা এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে তীব্র আন্দোলন চলছে। আন্দোলনের ব্যাপকতা এতটাই প্রকট হয়েছে যে, নিউইয়র্ক এবং ওয়াশিংটন ডিসিসহ কয়েক ডজন সিটিতে কারফিউ জারি করতে বাধ্য হয় প্রশাসন। নবম দিবসের মতো ৩ জুন বুধবারও প্রধান প্রধান সিটিতে কারফিউ বলবৎ রয়েছে। ৬০টিরও অধিক সিটিতে এদিনও বিক্ষোভ হয়েছে।

অনেক স্থানে কারফিউ ভেঙ্গে বিক্ষোভ করা হয় টহল পুলিশের সামনেই। ৩১ মে এবং জুনের ১ ও ২ তারিখে আন্দোলনের মাত্রা এতটাই বেপরোয়া হয়ে পড়েছিল যে, বিক্ষোভে ঢুকে পড়া দুষ্ট লোকেরা আশপাশের মূল্যবান সামগ্রীর স্টোরে হামলা চালিয়ে লুটতরাজে লিপ্ত হয়েছিল। এ কারণে এই ৩ রাতে বিভিন্ন সিটি থেকে ৭ হাজারের অধিক মানুষকে গ্রেফতারের ঘটনা ঘটেছে। আন্দোলনের শুরু থেকে ৯ দিনে গ্রেফতারের সংখ্যা মোট ১০ হাজার ৫০০। মারা গেছে ১০ জন। পুলিশ এবং স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন