রিফাত হত্যা মামলায় ২ আসামি রিমান্ডে

  

পিএনএস ডেস্ক : বরগুনায় চাঞ্চল্যকর রিফাত হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি মো. আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকনকে সাত দিন ও জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার কামরুল হাসান সাইমুনকে পুনরায় তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামিদের হাজির করে রিমান্ড আবেদন করলে আদালতের বিচারক মোহাম্মাদ সিরাজুল ইসলাম গাজি রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।

বরগুনা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির বলেন, মামলার এজাহারভুক্ত আসামি রাব্বি আকনকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। এ সময় জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার সাইমুনের পুনরায় পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আদালত রাব্বি আকনের সাত দিন ও কামরুল হাসান সাইমুনের তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন। হত্যায় জড়িত সন্দেহে কামরুল হাসান সাইমুনকে এ নিয়ে চতুর্থ দফায় রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

রিফাত হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ২ জুলাই ভোররাতে মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়। এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত তিনজনসহ সাত আসামি হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। এ ঘটনায় বর্তমানে ছয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। তার স্ত্রী আয়েশা আক্তার মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। রিফাতকে কুপিয়ে বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে হামলাকারীরা। তারা চেহারা লুকানোরও কোনো চেষ্টা করেনি।

গুরুতর আহত রিফাতকে এদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech