দেশের আত্মবিকাশকে রুদ্ধ করাই ছিল এই বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ডের মূল উদ্দেশ্য : ড. ফরাস উদ্দিন

  

পিএনএস ডেস্ক : মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাস উদ্দিন বলেছেন, 'স্বাধীনতাপ্রাপ্ত একটি দেশের আত্মবিকাশকে রুদ্ধ করাই ছিল এই বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ডের মূল উদ্দেশ্য।'

বুধবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত, এক মিনিট নিরবতা পালন ও পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর হাই-কমিশনার মহ: শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় শোক দিবসের আলোচনা সভা।

দূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম) মো. সায়েদুল ইসলামের পরিচালনায় আলোচনা সভায় রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করেন দূতাবাসের ডিফেন্স উইং প্রধান এয়ার কমডোর হুমায়ূন কবির। প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতালয় প্রধান ওয়াহিদা আহমেদ। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বানী পাঠ করেন প্রথম সচিব মোছা: তাহমিনা ইয়াসমিন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দ্বিতীয় সচিব শ্রম ফরিদ আহমদ।

সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে সেদিন বাঙালির ইতিহাসে এক কালিমালিপ্ত অধ্যায় রচিত হয়েছিল। এই বর্বর হত্যাযজ্ঞ ছিল বাঙালি জাতির ইতিহাসের সবচেয়ে কলঙ্কজনক অধ্যায়।

তিনি বলেন, এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড জাতির অস্তিত্ব ও মননে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি করে। তবে সে ক্ষতের কিছুটা উপশম হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের আমলে খুনিদের বিচারের মাধমে।

আলোচনা সভায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে আলোচনা করেন হাই কমিশনার মহ: শহীদুল ইসলাম। এ সময় দূতাবাস কর্তৃক শোক দিবসের আলোচনা সভায় মিনিস্টার (পলিটিক্যাল) রইছ হাসান সারোয়ার, শ্রম শাখার প্রথম সচিব মো. হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, কমার্শিয়াল উইং মো. রাজিবুল আহসান, ফার্ষ্ট সেক্রেটারি মো. মাসুদ হোসাইন,পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার প্রথম সচিব মো. মশিউর রহমান তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech