তারেক রহমানের তালিকায় ঢাকা বিভাগে প্রার্থী যারা (পর্ব ২)

  

পিএনএস : আগামী দিনের পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা তাকিয়ে আছেন লন্ডনের দিকে। দলের শীর্ষ নেতা সেখানে।দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে রয়েছেন। সে কারণে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এখন লন্ডন থেকে সাংগঠনিক ও নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করছেন।

তবে সূত্রে জানা যায়, নানা প্রতিকূল পরিবেশেও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে এগোচ্ছে বিএনপি।এছাড়া দলের প্রধান শরিক জামায়াত ইসলামকে নিয়ে চলছে নানা জটিলতা। আগামী নির্বাচনে জোটের সাথে জামায়াত ইসলামকে না নেয়ার সম্ভবনা রয়েছে।

তবে যে কোনো পরিস্থিতিতেই দলটি নির্বাচনে যেতে চায়। সূত্র জানা যায়, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের হাতে লন্ডনে ৩০০ আসনে দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা পৌঁছেছে।

কয়েক দফা জরিপ চালিয়ে দলের সম্ভাব্য প্রার্থীও চূড়ান্ত করা হয়। সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠপর্যায়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণাও শুরু করেছেন। দলটি আশা করছে, ভোটের আগেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারামুক্তি লাভ করবেন।

কোনো কারণে তিনি মুক্তি না পেলেও সম্ভাব্য সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখছে দলটি। হাইকমান্ডের সবুজ সংকেত পাওয়ার পরপরই মাঠে ঝাপিয়ে পড়বেন প্রার্থীরা।

এরই মধ্যে তারেক রহমানের নির্দেশনায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সিনিয়র নেতাদের নিয়ে একাদশ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। তারেক রহমানের টেবিলে যাওয়া দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা অনুযায়ী সংবাদ পেতে চোখ রাখুন পিএনএসে।

ঢাকা বিভাগে প্রার্থী তালিকা যারা রয়েছেন :

মানিকগঞ্জ-১ এস এম জিন্নাহ কবির বা প্রয়াত বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে খোন্দকার আখতার হামিদ ডাবলু ও আকবর হোসেন বাবলু, মানিকগঞ্জ-২ মঈনুল ইসলাম খান শান্ত ও সাইফুল হুদা চৌধুরী শাতিল, মানিকগঞ্জ-৩ আফরোজা খানম রিতা।

মুন্সিগঞ্জ-১ শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন ও মীর শরাফত আলী সপু। বৃহত্তর জোট হলে মাহী বি চৌধুরীও প্রার্থী হতে পারেন। মুন্সিগঞ্জ-২ মিজানুর রহমান সিনহা, মুন্সিগঞ্জ-৩ কামরুজ্জামান রতন ও সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত এম শামছুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম।

ঢাকা-১ আবদুল মান্নান, আবু আশফাক ও ফাহিমা হোসেইন জুবলী। বৃহত্তর জোট হলে পরিবর্তন হতে পারে। ঢাকা-২ আমানউল্লাহ আমান, ঢাকা-৩ গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ঢাকা-৪ ড. আসাদুজ্জামান রিপন, আবদুল হাই, অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ঢাকা-৫ সালাহউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা-৬ সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন, কাজী আবুল বাশার, হাজি লিটন, ঢাকা-৭ নাসিমা আক্তার কল্পনা, মীর নেওয়াজ আলী, ঢাকা-৮ হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, ঢাকা-৯ মির্জা আব্বাস, ঢাকা-১০ এম এ কাইয়ুম, ঢাকা-১১ সাইফুল আলম নিরব ও মো. শাহাবউদ্দিন, ঢাকা-১২ ব্যারিস্টার নাসিরউদ্দিন অসীম, শেখ রবিউল আলম ও ডা. আজিজুল হক, ঢাকা-১৩ আবদুস সালাম ও সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ঢাকা-১৪ এস এ খালেক বা তার ছেলে এ বি সিদ্দিকী সাজু, বজলুল বাসিত আঞ্জু, ঢাকা-১৫ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন ও মামুন হাসান, ঢাকা-১৬ ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ও আমিনুল ইসলাম, ঢাকা-১৭ মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী ও ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, ঢাকা-১৮ মেজর (অব.) কামরুল ইসলাম, এস এম জাহাঙ্গীর ও বাহাউদ্দিন সাদী, ঢাকা-১৯ ডা. দেওয়ান মো. সালাউদ্দিন ও মেজর (অব.) মিজানুর রহমান মিজান, ঢাকা-২০ ব্যারিস্টার জিয়াউর রহমান, সুলতানা আহমেদ ও ইয়াসিন ফেরদৌস মুরাদ।

গাজীপুর-১ মজিবুর রহমান, হুমায়ুন কবির ও কাজী সাইদুল আলম বাবুল, গাজীপুর-২ হাসান উদ্দিন সরকার, অধ্যাপক এম এ মান্নান বা তার ছেলে মঞ্জুরুল করিম রনি, গাজীপুর-৩ অধ্যাপক এম এ মান্নান বা তার ছেলে মঞ্জুরুল করিম রনি ও ডা. এস এম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, গাজীপুর-৪ সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আসম হান্নান শাহর ছেলে রিয়াজুল হান্নান, গাজীপুর-৫ এ কে এম ফজলুল হক মিলন।

নরসিংদী-১ খায়রুল কবির খোকন, নরসিংদী-২ ড. আবদুল মঈন খান, নরসিংদী-৩ অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, আকরামুল হাসান ও প্রয়াত সাবেক মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার ছেলে নন্দিত নাহিয়ান সজল, নরসিংদী-৪ সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল, আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল ও কর্নেল (অব.) জয়নুল আবেদীন, নরসিংদী-৫ জামাল আহমেদ চৌধুরী।

নারায়ণগঞ্জ-১ কাজী মনিরুজ্জামান, অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার ও মোস্তাফিজুর রহমান দীপু ভূঁইয়া, নারায়ণগঞ্জ-২ শিরিন সুলতানা, নজরুল ইসলাম আজাদ, আতাউর রহমান খান আঙ্গুর ও বদরুজ্জামান খসরু, নারায়ণগঞ্জ-৩ রেজাউল করিম ও আজহারুল ইসলাম মান্নান, নারায়ণগঞ্জ-৪ শাহ আলম, মোহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আবুল কালাম, সাখাওয়াত হোসেন খান ও জোটের শরিক সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাঈদ আহমেদ।

রাজবাড়ী-১ আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়াম ও অ্যাডভোকেট আসলাম মিয়া, রাজবাড়ী-২ নাসিরুল হক সাবু, হারুন অন রশীদ।

ফরিদপুর-১ শাহ আবু জাফর ও নাসিরুল ইসলাম, ফরিদপুর-২ শামা ওবায়েদ ইসলাম রিংকু, ফরিদপুর-৩ চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ ও মাহবুব হাসান ভূঁইয়া পিংকু, ফরিদপুর-৪ শাহজাদা মিয়া।

গোপালগঞ্জ-১ সেলিমুজ্জামান সেলিম, গোপালগঞ্জ-২ সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, এম এইচ খান মঞ্জু ও শেখ সাইফুর রহমান নান্টু, গোপালগঞ্জ-৩ এস এম জিলানী।

মাদারীপুর-১ ইয়াজ্জেম হোসেন রোমন, খলিলুর রহমান চৌধুরী, মাদারীপুর-২ হেলেন জেরিন খান, মাদারীপুর-৩ মাশুকুর রহমান মাশুক ও আনিসুজ্জামান তালুকদার খোকন।

শরীয়তপুর-১ শহিদুল হক শিকদার ও তাহমিনা আওরঙ্গ, শরীয়তপুর-২ সুলতান মাহমুদ, শফিকুর রহমান ও ডি এম গিয়াসউদ্দিন আহমদ, শরীয়তপুর-৩ তাহমিনা আওরঙ্গ, শফিকুর রহমান কিরণ। সিলেট বিভাগের প্রার্থীদের তালিকা পেতে পিএনএস এর সঙ্গে থাকুন।


পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech