‘সমাবেশ করার অনুমতি নিয়ে নাটক করছে ঐক্যফ্রন্ট’

  


পিএনএস ডেস্ক: সমাবেশের অনুমতি নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা অহেতুক নাটক করেছে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। । সমাবেশ করতে কারো বাধা নেই উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, নিরাপত্তার বিষয়ে পুলিশ তদারকি করবেই।

সকালে রাজধানীর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সড়ক ব্যবস্থাপনা নিয়ে এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৫-২০ দিন পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই হবে নির্বাচনকালীন সরকার, তবে এর আকার ও কাজের ধরণে পরিবর্তন আসবে বলেও জানান তিনি। নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভায় কে কে থাকবেন তা এখনো নিশ্চিত নয়।

এর আগে শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ঐক্যফ্রন্ট হল সাম্প্রদায়িক ও অশুভ শক্তির জোট। আওয়ামী লীগ নীতিগতভাবে তাদের সাথে সংলাপে বসতে পারে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণার আর মাত্র দশ বারো দিন বাকী। এরমধ্যে সংলাপের সময় কোথায়। আর দেশে এমন কোনো পরিস্থিতি নেই যে সংলাপ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, যারা ১০ বছরে ১০ মিনিটও আন্দোলন করতে পারেনি তাদের জোট ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে আওয়ামী লীগ বিচলিত নয়। অলেরডি দুই উইকেট পড়ে গেছে। আসন ভাগাভাগি হতে দেন আরো উইকেট পড়বে। আমরা বিষয়টা অবজার্ভ করছি।

সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, নির্বাচনের আগে সিলেটে মাজার জিয়ারত করা এটা এদেশের নির্বাচনের একটা অংশ। ঐক্যফ্রন্ট যদি সিলেটে মাজার জিয়ারত করতে যায় সেটা যাক। কিন্তু মাজার জিয়ারতের আড়ালে যদি কোন নাশকতা হয় তাহলে উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের করণীয় ঠিক করবে।

সংবাদ সম্মলেন রো উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, ডা. দীপু মণি, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, বিএম মোজাম্মেল, দপ্তর সম্পাদক ড.আবদুস সোবহান গোলাপ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, সদস্য এস এম কামাল হোসেন, মারুফা আক্তার পপি প্রমুখ।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech