সুন্দরগঞ্জে ডাক্তার না থাকায় ভেঙ্গে পড়েছে চিকিৎসা ব্যবস্থা

  

পিএনএস, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় অধিকাংশ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডাক্তার না থাকায় চিকিৎসা ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ভেঙ্গে পড়েছে। প্রতিদিন চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা স্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্ধ দেখে চিকিৎসা না দিয়ে বাড়ি ফিরে হাতুড়ে ডাক্তারদের চিকিৎসা নিতে বাধ্য হচ্ছেন।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন থেকে ধর্মপুর, কঞ্চিবাড়ি, সোনারায়, শোভাগঞ্জসহ প্রায় সবগুলো স্বাস্থ্য উপকেন্দ্রে ডাক্তার না থাকায় চিকিৎসা সেবা মারাতœকভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। ওই সব এলাকার শত শত মানুষ প্রতিনিয়ত চিকিৎসা সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন। সেই সাথে স্বাস্থ্য উপ-কেন্দ্র সমুহের জন্য বরাদ্দকৃত ওষুধ কোথায় যাচ্ছে তা নিয়ে দেখা দিয়েছে জনমনে নানান প্রশ্ন। ধর্মপুর বাজারের সমাজ সেবক সাজ্জাত হোসেন ডাকুয়া জানান, গত ২ মাস থেকে ধর্মপুর ইউনিয়নের স্বাস্থ্য উপকেন্দ্রটিতে ডাক্তার নেই। পিয়ন জিয়া মিয়া সপ্তাহে ২/১ দিন কেন্দ্রটি খোলেন।

প্রতিদিন শত শত মানুষ ওষুধ নিতে এসে ফিরে যাচ্ছেন। কেন্দ্রটির ২য় তলায় দীর্ঘদি থেকে একজন বহিরাগত চাকুরিজীবি পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন। এদিকে উপজেলার ১৫ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার স্বাস্থ্য কেন্দ্র সমুহে মেডিকেল অফিসারের পদ ২০টি থাকলেও রয়েছেন মাত্র ৬ জন। যারা রয়েছেন তারাও সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করছেন না মর্মে অভিযোগ তুলেছেন খোদ উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা ডাক্তার ইয়াকুব আলী মোড়ল।

তিনি বলেন একদিকে ডাক্তার সংকট অন্যদিকে যারা রয়েছেন তারাও সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন না। যে কারণে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন- এব্যাপারে সিভিল সার্জনের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্ধ এবং ডাক্তার নেই এব্যাপারে তিনি কোন সদ উত্তর দেননি। উপজেলা নির্বাহী এসএম গোলাম কিবরিয়া জানান, বহুবার এ বিষয়ে তাগাদা দেয়া হয়েছে কিন্তু কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech