কুমিল্লায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার তিনজনই ভিক্ষুক

  

পিএনএস ডেস্ক : কুমিল্লায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার এক মহিলাসহ তিনজনই ভিক্ষুক বলে জানিয়েছে কুমিল্লা জেলা পুলিশ।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় কুমিল্লা জেলার সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের ধুতিয়া দিঘির পাড় এলাকা থেকে ছেলেধরা সন্দেহে আব্দুস সালাম, রত্না বেগম ও আনোয়ার হোসেনকে আটক করে গণপিটুনি দেয় স্থানীয়রা।

খবর পেয়ে দ্রুত কুমিল্লা কোতোয়ালি থানা-পুলিশ ও আমড়াতলী ইউনিয়নের ছত্রখিল ফাঁড়ির পুলিশ গিয়ে মারাত্মক আহত অবস্থায় এক নারী সহ তিনজনকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

কুমিল্লা কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মো. সালাউদ্দিন জানান, ওই তিনজনের প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সকলেই কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বেজোড়া গ্রামের বাসিন্দা। সবাই ভিক্ষাবৃত্তি করেন বলে জানান তিনি।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মো. শাজাহান কবিরও ছেলেধরা সন্দেহে আটকৃতরা ভিক্ষুক বলে নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ঘটনার দিন রবিবার সকালে ওই তিন ব্যক্তি জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বেজোড়া গ্রাম থেকে আমড়াতলীতে ভিক্ষা করতে আসেন। কিছু পাওয়ার আশায় আমড়াতলী স্কুলের সামনের একটি বাড়িতে গিয়ে একটি ছোট শিশুকে ডাক দিলে ছেলেধরা সন্দেহে মহিলাসহ ওই তিন বয়স্ক ব্যক্তিকে এলাকাবাসী আটক করে এবং গণপিটুনি দেয়।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech