জাপানে বর্ষণ-ভূমিধসে নিহত সংখ্যা বেড়ে ১৭৬

  


পিএনএস ডেস্ক: জাপানের পশ্চিমাঞ্চলে টানা ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে নিহতদের সংখ্যা বেড়ে ১৭৬ জনে পৌঁছেছে। এখনো অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন।

জাপানে তিন দশকের মধ্যে বৃষ্টিপাতের কারণে এবারই সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হলো।

এই দুর্যোগে আটকে পড়া ব্যক্তিদের উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। নদীভাঙন ও তীব্র স্রোত থেকে বাঁচাতে এখন পর্যন্ত ২০ লাখের বেশি লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এরপরও অনেক লোক নিখোঁজ রয়েছে।

যেসব মানুষ আশ্রয় হারিয়েছে, তাদের জন্য বিভিন্ন স্কুলের হল ও জিমনেসিয়াম খুলে দেওয়া হয়েছে।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এ দুর্যোগ মোকাবিলায় একটি বিদেশ সফর বাতিল করেছেন। ফায়ার সার্ভিস ও সেনাবাহিনী মিলে ৭০ হাজারের বেশি কর্মী এখন পর্যন্ত উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

জাপানের বিভিন্ন অংশে এখনো বন্যার সতর্কতা জারি রয়েছে। এর মধ্যে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের বেশ কিছু জায়গা রয়েছে। আগামী কয়েক দিনে আবহাওয়ার অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলে উদ্ধারকাজ চালানো সহজ হবে।

উদ্ধারকাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত একজন সরকারি কর্মকর্তা এএফপিকে বলেন, ‘আমরা প্রতিটি বাড়িতে আলাদা করে তল্লাশি চালিয়ে দেখছি, সেখানে কেউ আটকে আছে কি না। আমরা জানি, এটা সময়ের সঙ্গে যুদ্ধ করে চলার মতো, কিন্তু আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টাই করে যাচ্ছি।’

বিবিসির খবরে বলা হয়, গত সপ্তাহে জাপানের ওই এলাকাগুলোতে ভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে ভারী বর্ষণের রেকর্ড হয়েছে। এর ফলে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে অনেক ভবন ধসে পড়েছে। কোনো কোনো এলাকা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে।

বন্যার প্রভাবে কয়েক হাজার বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। প্রায় ১৭ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে, টেলিফোন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে অনেক স্থানে, বন্ধ হয়ে গেছে রেলপথ ও মহাসড়ক।

আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালো হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এর ফলে উদ্ধার তৎপরতায় গতি আসবে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech