আরব সাগরে ভারতের যুদ্ধজাহাজ-পারমাণবিক সাবমেরিন

  

পিএনএস ডেস্ক : পাকিস্তানের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনার মধ্যেই আরব সাগরে যুদ্ধজাহাজ ও পারমাণবিক সাবমেরিন মোতায়েন করেছে ভারত। সমুদ্রে পাকিস্তানের হামলা প্রতিহত করতেই এমন পদক্ষেপ বলে জানিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী। বিশ্লেষকরা বলছেন, পাকিস্তানের হুমকি নয় বরং চীনকে কড়া বার্তা দিতেই এমন তৎপরতা শুরু করেছে নয়াদিল্লি। ভারত-পাকিস্তান সঙ্কট সমাধানে চীন ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে বেইজিং।

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়িবহরে ভয়াবহ হামলার পর আকাশযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে ভারত-পাকিস্তান। এর জেরে দেশ দু'টির চলমান উত্তেজনার মধ্যেই এবার সাগরে যুদ্ধের প্রস্তুতি হিসেবে বিশাল নৌ-মহড়া শুরু করেছে ভারত।

রুশ সংবাদ মাধ্যম আরটির প্রতিবেদনে বলা হয়, নৌবাহিনীর বিশাল সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে উত্তর আরব সাগরে রাশিয়ার তৈরি বিমানবাহী রণতরী আইএনএস 'বিক্রমাদিত্য' এবং বেশ কয়েকটি পারমাণবিক ক্ষমতাসম্পন্ন সাবমেরিন মোতায়েন করেছে ভারত।

এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করে দেশটির নৌবাহিনীর মুখপাত্র বলেন, উদ্ভূত যেকোনো পরিস্থিতিতে সমুদ্রপথে পাকিস্তানের আক্রমণ প্রতিরোধ ও প্রতিহত করতেই এ নৌ-মহড়া ও রণতরী মোতায়েন করা হয়েছে। দেশটির সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া ট্রপেক্স-২০১৯-এর আওতায় শুধুমাত্র নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডের ৭২টি জাহাজ এবং ৬০টি যুদ্ধবিমান এতে অংশ নিয়েছে বলে জানানো হয়।

নয়াদিল্লির এমন তৎপরতায় ইসলামাবাদ কোনো প্রতিক্রিয়া না জানালেও বিশ্লেষকরা বলছেন, পাকিস্তানের হুমকি প্রতিরোধ নয় বরং দেশটির প্রতি একতরফভাবে সমর্থন দিয়ে যাওয়ায় চীনকে কঠোর বার্তা দিতেই ভারতের এ সামরিক মহড়া।

এমন পরিস্থিতিতে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা প্রশমনে ইতিবাচক ভূমিকা পালনের ঘোষণা দিয়েছে চীন। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নে বেইজিং সব সময় কাজ করে যাচ্ছে।

এছাড়া, জইশ-ই-মোহাম্মাদের প্রধান মাসুদ আজহারকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কালো তালিকাভুক্ত করতে ভারতের সঙ্গে আলোচনার চীন প্রস্তুত বলেও জানায় বেইজিং।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech