চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহে প্রশ্ন ফাঁস, মোবাইলসহ আটক ২ - মফস্বল - Premier News Syndicate Limited (PNS)

চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহে প্রশ্ন ফাঁস, মোবাইলসহ আটক ২

  


পিএনএস ডেস্ক: চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহে এসএসসি পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্নপত্র জব্দ করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় ময়মনসিংহের ভালুকায় মোবাইল সহ দুই অভিভাবককে আটক করেছে পুলিশ। আর চট্টগ্রামে শর্ত সাপেক্ষে প্রশাসনের প্রহরায় পরীক্ষা নেয়া হয়।

এর মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীতে প্রশাসন অন্তত ৫০ শিক্ষার্থীর কাছ থেকে এসএসসি পদার্থ বিজ্ঞানের প্রশ্নপত্র জব্দ করেছে। ওই শিক্ষার্থীরা একটি বাসের মধ্যে বসে প্রশ্নগুলোর উত্তর মুখস্ত করছিল।

সেই ৫০ শিক্ষার্থীর মধ্যে পদার্থ বিজ্ঞান ছাড়াও বিভিন্ন বিষয়ের পরীক্ষার্থী রয়েছে বলে জানান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান।

মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি থানাধীন বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রের বাইরে এ ঘটনা ঘটে। পরীক্ষা শুরুর আগে পাওয়া এসব প্রশ্নের সঙ্গে পরে মূল প্রশ্নপত্রের মিল পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, সকালে পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে ওই কেন্দ্রের সামনে একটি বাসের মধ্যে বসে ৫০ জন শিক্ষার্থী ফাঁস হওয়া প্রশ্নের উত্তর শিখে নিচ্ছিল। এ সময় ম্যাজিস্ট্রেট বাসটিতে তল্লাশি চালিয়ে শিক্ষার্থীর ব্যাগ থেকে মোবাইল ফোন উদ্ধার করে, যাতে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন ছিল।

জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ আলী জানান, পরীক্ষা দিতে বাওয়া স্কুল কেন্দ্রে আসার পথে নগরীর ওয়াসার মোড়ে অপেক্ষা করছিল পটিয়া আইডিয়াল স্কুলের ৫০ শিক্ষার্থী। তাদের মোবাইলে ছিল ফাঁস হওয়া প্রশ্নের অনুলিপি। শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসে বসে তারা ফাঁস হওয়া ওই প্রশ্নপত্রের উত্তর মিলিয়ে নিচ্ছিল। সে সময় বিষয়টি জেলা প্রশাসনের নজরে পড়ে। বাসটিতে অভিযান চালিয়ে আট শিক্ষার্থীর মোবাইল ও ট্যাব থেকে উদ্ধার করা হয় পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ের প্রশ্নপত্র। পরীক্ষা শুরুর পর তা মিলিয়ে দেখা যায়, হুবহু ওই প্রশ্নেই হচ্ছে পরীক্ষা।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক সুমন বড়ুয়া বলেন, ‘ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রের সঙ্গে প্রশ্নের হুবহু মিল রয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি ও প্রতিষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন বাতিলও হতে পারে।’

বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও পরীক্ষা কেন্দ্র সচিব আনোয়ারা বেগম জানান, এবার একটি কেন্দ্রে একাধিক স্কুলের পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের কারণে অন্যবারের চেয়ে কেন্দ্রে অস্থিরতা বেড়েছে বলে জানান তিনি।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান জানান, পটিয়া আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা বাওয়া স্কুল কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে আসে।

তিনি আরো জানান, কেন্দ্রের বাইরে কিছু শিক্ষার্থীর মোবাইলে প্রশ্নপত্র পাওয়া যায়। শর্ত সাপেক্ষে তাদের প্রহরায় পরীক্ষা নেয়া হয়। ঘটনাস্থলে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের টিম রয়েছে। এ ব্যাপারে পরে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে গতকাল সোমবার চট্টগ্রামের রাউজান থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুজনকে আটক করে র্যাব-৭। র্যাব জানায়, এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করে ফেসবুকের মাধ্যমে বিক্রি করে এবং বিকাশের মাধ্যমে সেই টাকা নিতো চক্রটি।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech