বেগুন চাষে ব্যাপক সাফল্য

  

পিএনএস, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : বেড পদ্ধতিতে বেগুন চাষ করে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছেন গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের সীচা গ্রামের কৃষক আলী হায়দার। উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের সার্বিক সহযোগিতায় সঠিকভাবে আধুনিক বেড পদ্ধতি প্রয়োগ করে বেগুন চাষ করায় সকলের নজর কেড়েছে এই কৃষক। তার এই সাফল্য দেখে এখন অনেকে বেগুন চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। এছাড়া রাজস্ব প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ১০ জন কৃষক বিটি বেগুন চাষ করছে। উপজেলার চরাঞ্চলে কৃষিতে অভাবনিয় সাফল্যের মুখ দেখেছে কৃষকরা।

উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত তিস্তার চরাঞ্চল এখন সবুজের সমারহে পরিণত হয়েছে। বিভিন্ন পদ্ধতি প্রয়োগ করে নানাবিধ ফসলের চাষাবাদ করছে কৃষকরা। কথা হয় বেগুন চাষি আলী হাসানের সাথে। দীর্ঘদিন থেকে তিনি বেগুনসহ নানাবিধ তরিতরকারির চাষাবাদ করে আসছেন। চলতি মৌসুমে বেড পদ্ধতিতে পারপলকিং জাতের বেগুন চাষ করে তিনি। ৪০শতক জমিতে এই বেগুন চাষ করেছে। আগামি ৫ মাস ফলন পাওয়া যাবে। তিনি আশা করছেন ৫ মাসে প্রায় ২০০ মন বেগুন পাওয়া যাবে। যার আনুমানিক দাম প্রায় ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। এতে তার খরচ হবে প্রায় ৬০ হাজার টাকা। ইতিমধ্যে কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা একেএম ফরিদুল হক ওই চাষির বেগুন ক্ষেত পরিদর্শন করেছে। তিনি বলেন চাষি আলী হায়দার সঠিক পদ্ধতি, সঠিক মাপ বজায় রেখে বেগুন চারা রোপন করেছে। যার কারণে আলো বাতাস সঠিকভাবে প্রবাহিত হওয়ায় দারুন ফলন হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, এই উপজেলার মানুষ কৃষি বান্ধব। বিশেষ করে তিস্তার চরাঞ্চলসহ গোটা উপজেলার বেশ কিছু এলাকা তরিতরকারি চাষাবাদের জন্য অত্যন্ত উপযোগি। তিনি মনে করেন ধান চাষাবাদের চেয়ে তরিতরকারি চাষে ব্যাপক লাভ। আলী হাসান একজন সফল চাষি। তিনি বিভিন্ন সবজি চাষাবাদ করে এখন স্বাবলম্বী।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech