খালেদা জিয়া বলেছেন, জামিন না দেওয়া নজিরবিহীন

  

পিএনএস ডেস্ক : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির কারাবন্দী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে তাঁর স্বজনেরা বলছেন, এখানে সে কীভাবে বাঁচবে। এ ছাড়া খালেদার ঠিকমতো চিকিৎসা হচ্ছে না বলে স্বজনরা দাবি করছেন।

আজ রোববার খালেদা জিয়ার পরিবারের পাঁচজন সদস্য- সেলিমা ইসলাম ও তাঁর স্বামী রফিকুল ইসলাম, ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার ও তাঁর স্ত্রী কানিজ ফাতেমা এবং শামীম ইস্কান্দারের ছেলে অভিক ইস্কান্দার দেখা করেন। পরে বেরিয়ে এসে বাইরে অপেক্ষারত সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।


এক মাসেরও বেশি সময় পরে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তাঁর স্বজনদের সাক্ষাৎ হয়। গত ১৪ ডিসেম্বর দেখা করার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে তা বাতিল হয়। আজ বেলা তিনটায় বিএসএমএমইউতে যান তাঁর স্বজনেরা। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর বের হয়ে খালেদার বোন সেলিমা ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওনার শরীর খুবই খারাপ। হাঁটাচলা করতে পারছেন না, খেতে পারছেন না, খেলেই বমি হয়ে যাচ্ছে। সুগার কন্ট্রোলে (নিয়ন্ত্রণ) আসছে না। এ অবস্থায় তাঁর তো উন্নত চিকিৎসা দরকার। আদালত তো জামিন দিলেন না। পেটে ব্যথা হচ্ছে, ডাক্তার ওষুধ দিচ্ছে না, চিকিৎসা ঠিকমতো হচ্ছে না। এখানে কীভাবে সে বাঁচবে।’

খালেদা জিয়া দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বলে জানান তাঁর বোন। খালেদার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসছে না জানিয়ে সেলিমা ইসলাম বলেন, তাঁর সুগার লেভেল এখন ১৪।

গত ১২ ডিসেম্বর আপিল বিভাগে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি হয়। সেদিন আদালত তাঁর মেডিকেল রিপোর্ট দেখেন। তবে সেদিনও তাঁর জামিন হয়নি। এ বিষয়ে সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘ওনার বয়স, অসুস্থতা বিবেচনা করে তো জামিন দেওয়া উচিত ছিল। জামিন মানে তো ছেড়ে দেওয়া না। জামিন তো দিতেই পারত। ’ তিনি আরও বলেন, আদালতে দেওয়া মেডিকেল প্রতিবেদনের সঙ্গে বাস্তবের কোনো মিল নেই। চিকিৎসা ঠিকমতো হচ্ছে না।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech