নীরব কেন রফিক আজাদ? নীরব কেন জয়নুল?

  


ও কবি, তুমি কি কবিতা লিখ?
যত্তো সব প্রেমের কবিতা!
প্রেমের বাঁশী বাজাও পাগল করো সখীদের-
কবিতার ফাঁদে ধর্ষণ করো অবলাদের।

কবি, তুমি কি দেখো না করোনাকালে
লাল, হলুদ, নীল রংয়ের রংবাজী চলছে-
বাংলা মদে মাতাল হয়েছে মহাখালীর বান্দারা?
তেজগাঁয়ের সাতরাস্তায় জোচ্চুরি করছে কারা?
তোমাদের কলম কি তার খবর রাখে?

তোমরা সোনাগাছির চিত্রকর?
এলোকেশীর চেহারা এতো কেন মস্তিষ্কে?
করোনাকালেও সুন্দরের কাব্যকথা ঘিরে আছে তোমাদের-

তোমরা সবাই রবীন্দ্র আর জীবনানন্দ হতে চাও?
কৃষ্ণলীলার পালায় রাঁধার প্রেম খুজো?
বিরহ ব্যাথার খবর রাখো না।

আমার কিছু রফিক আজাদ দরকার।
যারা লিখবে, ভাত দে হারামজাদা.......
আমার কিছু সুকান্ত দরকার।
যারা লিখবে, পূর্ণিমার চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি।
বিদ্রোহী নজরুলকে দরকার।

আমাকে তোমরা কিছু কবিতা দাও-
যাতে উঠে আসবে সূর্য সেনের জেল থেকে লেখা চিঠি-
পালং এর হাজ্বী শরীয়তউল্লাহর গর্জন-
গাজীপুরের ফকীর মজনু শাহ-
কিংবা জিরো পয়েন্টের নূর হোসেন।

আমার কবিরা প্রস্তুত।
আমার কবিতা লিখবে সদরঘাটের কুলি-
আমার কবিতা লিখবে সিটি করপোরেশনের ময়লাওয়ালা-
তারা নূর হোসেন হবে-
হবে জিহাদ-
হবে রাউফুন বসনিয়া-
হবে ডাঃ মিলন-

আর তোমরা কবিরা প্রেমের কবিতা লিখবে-
নিকুচি করি তোমাদের কবিতার-
আহমদ ছফার মতো গালি দিবো তোমাদের।
১৬ জুন, সকাল ১১-০০ টা বনশ্রী, ঢাকা।

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন