সাকিবের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সেও হারল বার্বাডোজ

  

পিএনএস ডেস্ক: ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পরও সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের কাছে ১ রানে হেরেছে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস।

বল হাতে ইনিংসের প্রথম ওভারেই মেইডেনসহ মাত্র ১৪ রান খরচায় ১ উইকেট এবং পরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩ চার ও ১ ছক্কার মারে ২৫ বলে ৩৮ রানের ইনিংস- সিপিএলে নিজের প্রথম ম্যাচটা এভাবেই রাঙিয়ে রাখলেন সাকিব। তবু জয় পায়নি তার দল বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ সময় ভোরে ব্রিজটাউনে আসরের ২৫তম ম্যাচে মুখোমুখি হয় দু’দল।

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে সেন্ট কিটস। ফিল্ডিংয়ে নেমে প্রথম ওভারটিই সাকিবের হাতে তুলে দেন বার্বাডোজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিয়ে ইনিংসের শুরুর ওভারে মেইডেন দিয়ে এবারের সিপিএলে নিজের পথচলা শুরু করেন সাকিব।

পরে তৃতীয় ওভারে সাকিব খরচ করেন ৪ রান, এ দুই ওভার করিয়ে পরের জন্য তার ওভার রেখে দেন হোল্ডার। সেন্ট কিটসের মোহাম্মদ হাফিজ (১৩), এভিন লুইস (১৯) কিছু করতে না পারলেও শামার ব্রুকস চেপে বসেন স্বাগতিক বোলারদের ওপর। খেলেন ৩৩ বলে ৫৩ রানের এক ইনিংস।

মাঝে সাকিবকে নবম ওভারে ডাকেন হোল্ডার। সে ওভারে আসে ৬ রান। তিন ওভার শেষে সাকিবের বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৩-১-১০-০। শুরু থেকেই দারুণ বোলিং করলেও উইকেটের দেখা মিলছিল না কিছুতেই। নিজের চতুর্থ ওভার করতে আসেন ইনিংসের ১৭তম ওভারে।

স্লগে বোলিং করতে এসে নিজের প্রথম বলেই লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন কার্লোস ব্রাথওয়েটকে। পরে ওভার থেকে খরচ করেন আরও ৪ রান। সবমিলিয়ে নিজের ৪ ওভারে কোনো বাউন্ডারি হজম না করে এক মেইডেনের সহায়তায় মাত্র ১৪ রান খরচায় ১ উইকেট নেন সাকিব।

শেষদিকে ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ১৩ বলে ২০ ও কিরন কটয় ১০ বলে ১৩ রান করে দলীয় সংগ্রহটাকে ১৪৯ রান পর্যন্ত নিয়ে যান। বার্বাডোজের পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন হেইডেন ওয়ালশ ও হ্যারি গার্নি।

রান তাড়া করতে নেমে সাকিব ছাড়া আর কেউই তেমন কিছু করতে পারেনি। দুই ওপেনার জনসন চার্লস ১২ বলে ১৩ এবং অ্যালেক্স হেলস আউট হন ২২ বলে ১৯ রান করে। তিন নম্বরে নেমে সাকিব আল হাসান একাই টানতে থাকেন বার্বাডোজের ইনিংস। দ্বাদশ ওভারে লংঅন বাউন্ডারিতে ধরা পড়ার আগে খেলেন ২৫ বলে ৩৮ রানের ইনিংস।

এরপর জেপি ডুমিনি ১৬ বলে ১৮, জোনাথন কার্টার ২ বলে ১, জেসন হোল্ডার ৭ বলে ১ ও অ্যাশলে নার্স ৪ বলে ১ রান করে আউট হলে চাপে পড়ে যায় বার্বাডোজ। তবে আট নম্বরে নেমে রেয়মন রেইফার আশা জাগান জয়ের। তিন ছয়ের মারে ১৮ বলে ৩৪ রান করে জমিয়ে তোলেন ম্যাচ।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ২ উইকেট হাতে নিয়ে ১২ রান প্রয়োজন ছিলো বার্বাডোজের। প্রথম ডেলিভারি ওয়াইড হওয়ার পর, বৈধ প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান রেইফার। সমীকরণ নেমে আসে ৫ বলে ৫ রানে। কিন্তু পরের বলেই ২ রান নিতে গিয়ে রানআউট হন রেইফার। আর একদম শেষ বলে ২ রানের চাহিদায় ব্যাট ঘুরিয়ে সোজা বোল্ড হয়ে যান হ্যারি গার্নি। ফলে ১ রানের জয় পায় সেন্ট কিটস।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech